ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বাড়ছে করোনা রোগী, নেই পিসিআর ল্যাব-আইসিইউ

|

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় প্রতিদিন বাড়ছে করোনা সংক্রমণের হার।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় প্রতিদিন বাড়ছে করোনা সংক্রমণের হার। অথচ, জেলায় করোনার নমুনা পরীক্ষা একেবারেই অপ্রতুল। কারণ, জেলাটিতে নেই করোনার নমুনা পরীক্ষার আরটি-পিসিআর ল্যাব। এন্টিজেন টেস্ট করাতে গেলেও পোহাতে হয় ভোগান্তি। জেলার কোনো হাসপাতালে নেই আইসিইউ, সদর হাসপাতালে অক্সিজেন সংকটের কথা স্বীকার করেছেন খোদ তত্ত্বাবধায়ক। এই অবস্থায় যথাযথ সেবা দেয়া যাচ্ছে না করোনায় গুরুতর অবস্থা হয়ে যাওয়া রোগীদের।

ব্রাহ্মণবাড়িয়াতে নমুনা পরীক্ষার ল্যাব না থাকায় উপসর্গ থাকার পরও এন্টিজেন টেস্টের মাধ্যমে যাদের ফল নেগেটিভ আসে তাদের নমুনা পিসিআর পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয় ঢাকায়। জেলায় এন্টিজেন টেস্টের সুযোগও সীমিত। ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর ও আট উপজেলায় দিনে মাত্র ছয়শ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়। অথচ, পরীক্ষা করতে নমুনা দিতে আসেন কয়েকগুণ মানুষ। দীর্ঘক্ষণ অপেক্ষার পরও পরীক্ষা না করাতে পেরে ফিরে যেতে হয় অনেককে। নমুনা দিতে লাইনে দাঁড়িয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়াতে এ পর্যন্ত দুই জনের মৃত্যুর ঘটনাও ঘটেছে।

নমুনা পরীক্ষার মতো বেহাল করোনা রোগীদের চিকিৎসাসেবাও। সদর হাসপাতালে দীর্ঘদিনেও শেষ হয়নি সেন্ট্রাল অক্সিজেন প্ল্যান্ট বসানোর কাজ। নেই পর্যাপ্ত অক্সিজেন সিলিন্ডার।

অক্সিজেন সংকটের বিষয়টি স্বীকার করেছেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. মো. ওয়াহীদুজ্জামান। তিনি বলেন, আমি আশঙ্কা করছি রোগী আরও বেড়ে যেতে পারে। যে কারণে আমি আজও একটি চিঠি দিয়েছি আমাদের আরও কিছু অক্সিজেন সিলিন্ডার দেওয়া জন্য। বর্তমানে আমাদের কাছে যে অক্সিজেন আছে তা দিয়ে আমি চাহিদা মেটাতে পারছি না।

উল্লেখ্য, নমুনা বিবেচনায় ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় করোনা সংক্রমণের হার ৫০ শতাংশেরও ওপরে।

/এস এন





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply