ভারতের ২৪টি বিশ্ববিদ্যালয়কে ভুয়া ঘোষণা

|

ভারতের বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি)।

২৪টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে ভুয়া বলে ঘোষণা দিয়েছে ভারতের বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি)। পাশাপাশি নিয়ম ভঙ্গের প্রমাণ পাওয়া গেছে আরও দু’টি প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে। খবর ভারতীয় গণমাধ্যম এনডিটিভির।

ভারতের কেন্দ্রীয় শিক্ষামন্ত্রী ধর্মেন্দ্র প্রধান সোমবার (২ আগস্ট) পার্লামেন্টে এসব তথ্য জানান।

কেন্দ্রীয় শিক্ষামন্ত্রী ধর্মেন্দ্র প্রধান জানান, বিভিন্ন মাধ্যমে পাওয়া অভিযোগের ভিত্তিতে ২৪টি প্রতিষ্ঠানকে ভুয়া বিশ্ববিদ্যালয় ঘোষণা করেছে ইউজিসি। এছাড়া ভারতীয় শিক্ষা পরিষদ, লখনৌ, উত্তর প্রদেশ এবং ইন্ডিয়ান ইনস্টিটিউট অব প্লানিং অ্যান্ড ম্যানেজমেন্ট (আইআইপিএম), কুতুব এনক্লেভ, দিল্লি নামের দু’টি প্রতিষ্ঠান পরিচালিত হচ্ছে ইউজিসি আইন না মেনেই। এদের বিষয়ে সিদ্ধান্ত আদালতে বিবেচনাধীন রয়েছে।

সবচেয়ে বেশি আটটি ভুয়া বিশ্ববিদ্যালয় রয়েছে উত্তর প্রদেশে। এগুলো হলো বারানসী সংস্কৃত বিশ্ববিদ্যালয়, বারানসী; মহিলা গ্রাম বিদ্যাপিঠ, এলাহাবাদ; গান্ধী হিন্দি বিদ্যাপিঠ, এলাহাবাদ; ন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি অব ইলেক্ট্রো কমপ্লেক্স হোমিওপ্যাথি, কানপুর; নেতাজি সুভাষ চন্দ্র বোশ ওপেন ইউনিভার্সিটি, আলিগড়; উত্তর প্রদেশ বিশ্ববিদ্যালয়, মথুরা; মহারানা প্রতাপ শিক্ষা নিকেতন বিশ্ববিদ্যালয়, প্রতাপগড় এবং ইন্দ্রপ্রষ্ঠা শিক্ষা পরিষদ, নয়ডা।

এছাড়া দিল্লিতে রয়েছে সাতটি ভুয়া বিশ্ববিদ্যালয়। উড়িষ্যা এবং পশ্চিমবঙ্গের প্রতিটিতে দুইটি করে ভুয়া বিশ্ববিদ্যালয় রয়েছে। কর্নাটক, কেরালা, মহারাষ্ট্র, পদুচেরিতেও একটি করে ভুয়া বিশ্ববিদ্যালয় রয়েছে।

এসব তালিকাভুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর বিরুদ্ধে কী ধরনের ব্যবস্থা নেয়া হবে জানতে চাইলে ধর্মেন্দ্র প্রধান বলেন, প্রতিষ্ঠানগুলোকে নিয়ে বিভিন্ন জাতীয় পত্রিকায় প্রকাশ্য বিবৃতি দিয়েছে ইউজিসি। এছাড়াও, এদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য সংশ্লিষ্ট রাজ্য কর্তৃপক্ষকে চিঠি দেওয়া হয়েছে।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply