চীনে আতঙ্ক ছড়াচ্ছে করোনার ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট

|

ছবি: সংগৃহীত

এবার করোনার ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট ছড়িয়ে পড়েছে চীনে। করোনার প্রথম সংক্রমণ হওয়া এলাকা উহান শহরসহ আরও অন্তত ১৫টি প্রদেশে শনাক্ত হয়েছে আক্রান্ত ব্যক্তি।

গত ১০ দিনে তিনশতাধিক ব্যক্তির শরীরে মিলেছে করোনার ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট। এরমধ্যে সবচেয়ে বেশি সংক্রমণ হয়েছে জিয়াংসু প্রদেশের নানজিংয়ে। পরিস্থিতি সামাল দিতে অন্তত ৫ এলাকায় দেয়া হয়েছে লকডাউন। পাশাপাশি আক্রান্ত অঞ্চলগুলোর সাথে বেইজিংয়ের সবধরনের যোগাযোগ বন্ধ করা হয়েছে।

চীনের ন্যাশনাল হেলথ কমিশনের মুখপাত্র মি ফেং বলেন, সারা বিশ্বে ছড়িয়ে পড়েছে করোনার ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট। সর্বোচ্চ সতর্কতা সত্ত্বেও চীনেও অস্তিত্ব মিলেছে এই ভাইরাসের। এটি যাতে মহামারী আকার ধারণ না পারে সেই ব্যবস্থাই আমরা নিয়েছে। প্রতিটি অঞ্চলের প্রতিটি শহরে স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হচ্ছে। একজন আক্রান্ত পেলেই আমরা কড়াকড়ি আরোপ করছি পুরো এলাকাতেই।

ধারণা করা হচ্ছে, নানজিংয়ে রাশিয়া থেকে আসা একটি বিমান থেকে ছড়িয়েছে এই ভাইরাস। এরপরপরই লকডাউন জারি করা হয় সেখানে। স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হয় ৯২ লাখ মানুষের। কড়াকড়ি আরোপ করা হয়েছে হুনান প্রদেশের জাংজিয়াজি এবং হেনানের জাংজুতেও।

মি ফেং আরও জানান, আমাদের গবেষকরা নিশ্চিত এটা ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট। এটি নিয়ে এরই মধ্যে গবেষণা শুরু হয়েছে। আগের চেয়ে ভাইরাসের এই ধরণ অনেক বেশি ভয়ংকর। উহানে যে ধরণ পাওয়া গেছে, তার চেয়ে এটা অনেক দ্রুত ছড়ায়। তাই আমরা অনেক বেশি সতর্কতা নিয়েছি।

বেইজিং মিউনিসিপ্যালের মুখপাত্র হু হেইজিয়ান বলছেন, বেইজিংয়ে যাতে ভাইরাস না ছড়িয়ে পড়ে সে বিষয়ে সর্বোচ্চ সতর্কতা নেয়া হয়েছে। চলছে স্বাস্থ্য পরীক্ষা। যেসব এলাকাগুলোয় পর্যটক বেশি, সেসব এলাকায় আমরা বেশি জোর দিয়েছি। কেউ যেন স্বাস্থ্য পরীক্ষা থেকে বাদ না যায় সেই ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।

চীনা কর্তৃপক্ষ বলছে, পরিস্থিতি এখনও নিয়ন্ত্রণে আছে। দেশটিতে এখন পর্যন্ত ১৬০ কোটি ডোজ টিকা দেয়া হয়েছে।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply