ইংল্যান্ডের বাংলাদেশ সফর, হাল ছাড়ছে না বিসিবি

|

ছবি: সংগৃহীত

বাংলাদেশের সাথে ইংল্যান্ডের সাদা বলের সিরিজ অনির্দিষ্টকালের জন্য স্থগিত হবার ব্যাপারে ইংল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ড আনুষ্ঠানিক কোনো বিবৃতি দেয়নি। সিরিজ স্থগিত হবার কোনো প্রমাণ তাই পাওয়া যায়নি। তাছাড়া বিসিবিও জানিয়েছে, স্থগিত হয়নি সফর।

জানা গেছে, ব্যস্ত সূচির কারণে টি-২০ বিশ্বকাপের পরে যদি সময় পাওয়া না যায়, সেক্ষেত্রে বিশ্বকাপের আগেই হবে এই সিরিজ। দুই বোর্ড সে ব্যাপারেই আলোচনা চালাচ্ছে।

সোমবার (২ আগস্ট) ইএসপিএন ক্রিকইনফোর একটি খবরে বলা হয়, অনির্দিষ্টকালের জন্য স্থগিত হয়েছে বাংলাদেশের সাথে ইংল্যান্ডের সাদা বলের সিরিজ।

টি-২০ বিশ্বকাপের ঠিক আগে আগেই সিরিজটি হবার কথা রয়েছে। তবে ইংল্যান্ডের সামনে রয়েছে ব্যস্ততায় ঠাঁসা এক সূচি। টি-২০ বিশ্বকাপ ছাড়াও তাদের সামনে আছে মর্যাদার অ্যাশেজ। এছাড়াও বিশ্বকাপের প্রস্তুতির অংশ হিসেবে অক্টোবরের ১৪ ও ১৫ তারিখে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে দুটি টি-২০ ম্যাচ খেলার কথা আছে ইংলিশদের।

এছাড়াও গুরুত্বপূর্ণ ব্যাপারটি হচ্ছে, প্রায় একই সময়ে হতে যাচ্ছে আইপিএলের বাকি বেশ কয়েকটি ম্যাচ, যেখানে অংশ নিতে পারেন বেশ কয়েকজন ইংলিশ ক্রিকেটার। ইংল্যান্ডের বাংলাদেশ সফর হবার কথা সেপ্টেম্বর অক্টোবরে। আর সেপ্টেম্বরের ১৯ তারিখ থেকে আরব আমিরাতে শুরু হতে যাচ্ছে আইপিএল।

করোনাকালীন ক্রিকেটের বর্তমান বাস্তবতায় হরহামেশাই জাতীয় দলের পাইপলাইনে বেশি সংখ্যক খেলোয়াড়কে খেলাতে দেখা যাচ্ছে। কোয়ারেন্টিন ও বায়ো বাবলে থাকার কারণে মানসিক অবসাদেও আক্রান্ত হচ্ছেন খেলোয়াড়রা। ব্রিটিশ অলরাউন্ডার বেন স্টোকস এমন ঘটনার সর্বশেষ সংযোজন।

তাছাড়াও সাম্প্রতিক সময়ে দেখা গেছে, ভারতের বেশ কিছু ক্রিকেটার ইংল্যান্ড সফরের অনুশীলনে ব্যস্ত থাকায় শ্রীলঙ্কায় সফরে ভারত পাঠিয়েছে তাদের পাইপলাইনের উদীয়মান এক ঝাঁক খেলোয়াড়কে। ভারতের এই কথিত বি-টিমের পারফরমেন্সও ছিল বেশ সমীহ জাগানিয়া। তাই সফর স্থগিতের সম্ভাবনা এখুনি সেভাবে দেখা যাচ্ছে না। তার চেয়ে সফর পিছিয়ে দেয়া বা তরুণ খেলোয়াড়দের পাঠানোর সম্ভাবনাকেই বেশি জোরালো মনে হচ্ছে।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply