ঈশিতাকে নিয়ে যা জানালো র‍্যাব

|

র‍্যাব কমান্ডার খন্দকার আল মইন।

ব্রিগেডিয়ারসহ নানা পরিচয়ে প্রতারণার অভিযোগে ইশরাত রফিক ঈশিতা নামের একজন ডাক্তারকে গ্রেফতার করেছে র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‍্যাব)।

রোববার (১ আগস্ট) বিকেলে এক সংবাদ সম্মেলনে র‍্যাব কমান্ডার খন্দকার আল মইন জানান, সেনাকর্মকর্তার ভুয়া পোশাক বানিয়ে তিনি নিজেকে সেনা কর্মকর্তা দাবি করতেন। আসলে তার সেনাকর্তৃপক্ষের সাথে কোনোরকম সংশ্লিষ্টতা নেই। ছয় মাস পরপর পদোন্নতি পেয়ে পেয়ে ক্রমে ব্রিগেডিয়ার জেনারেল হওয়ার মিথ্যা দাবি করেছিলেন। ছয় মাসে পদোন্নতি কীভাবে হতে পারে তা জানতে চাইলে কোনো সদুত্তর দিতে পারেনি ঈশিতা, জানিয়েছে র‍্যাব।

করোনা নিয়ে দুইবারের সেমিনারে ভুয়া সার্টিফিকেট দিয়ে ঈশিতা বেশকিছু টাকা আত্মসাৎ করেছেন বলেও জানায় র‍্যাব। তাছাড়া আরও একাধিক অনুষ্ঠানে বেশকিছু গণ্যমান্য লোকজনকে উপস্থিত করিয়েও সার্টিফিকেট দেয়ার নামে টাকা আত্মসাৎ করেছেন তিনি।

র‍্যাব কমান্ডার বলেন, ঈশিতার আকাশচুম্বি পরিচিতির লিপ্সা ছিল। পরিচিতির লোভেই তিনি বিভিন্ন অনলাইন প্লাটফর্মে লাইভ করতেন। ভুয়া সার্টিফিকেট তৈরি করে বিভিন্ন বিদেশি স্বীকৃতির দাবি করা ছাড়াও ভুয়া ছবি দেখিয়ে মানুষকে প্রতারণা করতেন তিনি। এর ফলে মানুষ তাকে টকশোতে ডাকতো বলে জানান র‍্যাব কমান্ডার খন্দকার আল মইন।

জানানো হয়েছে, ঈশিতা ৫০ থেকে ৬০টি দেশে ঘুরে যে বিভিন্ন সার্টিফিকেট অর্জন করেছেন, তার সবই ভুয়া। এছাড়াও তিনি ইয়ং ওয়ার্ল্ড লিডার্স ফর হিউম্যানিটি নামে ভুয়া সংগঠন করে তাতে ৫০ থেকে ১০০ ডলারের বিনিময়ে অন্তত ১৫ থেকে ২০টি দেশে প্রতিনিধি নিয়োগ দিয়েছেন।

র‍্যাব কর্মকর্তা জানান, তিনি বিভিন্ন জায়গায় নিজেকে আইপিসির অফিসার পরিচয় দিলেও তার কোনো প্রমাণ দেখাতে পারেননি, তাছাড় আইপিসি নামের যে সংগঠনের পচিয়র ঈশিতা দিয়েছেন, তাও খুঁজে পায়নি র‍্যাব। এছাড়া তার অ্যাওয়ার্ড সংক্রান্ত দাবি মিথ্যা বলে জানিয়েছে র‍্যাব।

বিভিন্ন দেশে ভ্রমণের তথ্যগুলোও ভুয়া বলে জানায় র‍্যাব। কমান্ডার জানান, তিনি শুধু একবার জার্মানি ভ্রমণ করেছিলেন।

এমনকি তিনি বিভিন্ন জায়গায় দাবি করেছেন তিনি ক্যান্সার বিশেষজ্ঞ, নারী ও শিশু বিশেষজ্ঞ ইত্যাদি, এসবও ভুয়া বলে জানায় র‍্যাব।

এর আগে শৃঙ্খলাভঙ্গের দায়ে তাকে সরকারি একটি প্রতিষ্ঠানের চুক্তিভিত্তিক চাকরি থেকে বরখাস্ত করা হয়েছিল বলে জানায় র‍্যাব। এরপর ফেসবুকে দিদার নামের একজনের সাথে পরিচয় হয় তার। দিদারের সাথেই তিনি এই প্রতারণার প্রাথমিক পরিকল্পনা করেছিলেন বলে জানতে পেরেছে র‍্যাব।

৩১ জুলাই রাতে রাজধানীর মিরপুর থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারের সময় জানানো হয়েছিল, দেশি-বিদেশি বিভিন্ন সংস্থার প্রতিনিধি পরিচয়ে গ্রেফতার হওয়া ইশরাত রফিক ঈশিতা নিজেকে চিকিৎসাবিজ্ঞানী ও গবেষক, বিশিষ্ট আলোচক, ডিপ্লোম্যাট, ব্রিগেডিয়ার জেনারেল পরিচয় দিয়ে আসছিলেন।


সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply