গ্রিনপাসের বিরোধিতায় উত্তাল ইতালি

|

গ্রিনপাসের বিরোধিতায় ইতালির পার্লামেন্টেও সৃষ্টি হয়েছে উত্তেজনা।

গ্রিনপাসের বিরোধিতায় উত্তাল ইতালি। কোভিড ভ্যাকসিন নিয়েছেন শুধু এমন নাগরিকদের দেয়া হবে এই কার্ড। যেটি ব্যবহার করে গণপরিবহন, শপিংমল এবং পার্কে যেতে পারবেন ইতালির নাগরিকরা।

আর যাদের গ্রিন পাস যাদের নেই, তারা বঞ্চিত হবেন এই সুযোগ থেকে। গ্রিনপাসের বিরুদ্ধে ক্ষুব্ধ জনতা বলছেন, সরকারের এমন সিদ্ধান্ত সংবিধানবিরোধী।

আলোচিত ভ্যাকসিন কার্ড বা গ্রিন পাসের বিরুদ্ধে বিক্ষোভে উত্তাল সেন্ট্রাল রোম। গ্রিন পাস নামে এই কার্ড ইস্যু করা হবে শুধুমাত্র যারা করোনার ভ্যাকসিন গ্রহণ করেছেন তাদেরকে। এরপর সেই কার্ড দেখাতে হবে গণপরিবহণে চলাচল কিংবা শপিংমলে প্রবেশের সময়। এমনকি রেস্টুরেন্ট, পার্ক এবং যেকোনো বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানে প্রবেশের সময়ও দেখাতে হবে গ্রিন পাস।

এদিকে গ্রিনপাস প্রচলনের ঘোষণার পর থেকেই ইতালি জুড়ে চলছে বিতর্ক। দেশটির নাগরিকরা বলছেন, গ্রিন পাস সম্পূর্ণভাবে সংবিধান বিরোধী। আমরা টিকা নেবো কি না, সে সিদ্ধান্ত চাপিয়ে দেয়ার ক্ষমতা কারো নেই। এটা আমাদের ইচ্ছার বিরুদ্ধে নেয়া একটি সিদ্ধান্ত। এটা গণতন্ত্র এবং মানবতাবিরোধী।

গ্রিন পাস না থাকলে আপনি পার্কে যেতে পারবেন না, অফিসে যেতে পারবেন না, এমন সিদ্ধান্ত কর্তৃপক্ষ চাপিয়ে দিতে পারেন না। আমরা এখানে বিক্ষোভ করছি, এই লড়াই আমাদের ব্যক্তিস্বাধীনতার।

গ্রিন পাস বা ভ্যাকসিন সার্টিফিকেট প্রদর্শনের মতো বিষয়, দৈনন্দিন জীবন যাপনের ক্ষেত্রে কার্যকর নয়, এমনটিই বলছেন বিক্ষোভকারীরা।

এটা সম্পূর্ণ অবাস্তব একটা সিদ্ধান্ত। কারণ আপনি অফিসে যাবেন, বাসে উঠবেন, রেস্টুরেন্টে যাবেন, এসব কাজের জন্য আপনাকে সবসময় পাস দেখাতে হবে। এটা কি সম্ভব? কখনোই না। তাহলে খামাখা সাধারণ মানুষকে হেনস্তা করা কেন?

বিক্ষোভের উত্তাপ ছড়িয়েছে ইতালির পার্লামেন্টেও। গ্রিন পাস বাতিলের দাবি প্ল্যাকার্ড হাতে বিক্ষোভ করেন অনেক পার্লামেন্ট সদস্য।

অপরদিকে ইতালি কর্তৃপক্ষ বলছে আসন্ন সেপ্টেম্বরের মধ্যেই দেশটির সব নাগরিকের ভ্যাকসিন গ্রহণ সম্পন্ন হবে।

/এসএইচ





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply