মার্কিন সেনাদের সাহায্যকারী আফগানদের যুক্তরাষ্ট্রে স্থানান্তর

|

তালেবানের পুনরুত্থানে নিজেদের নিরাপত্তা নিয়ে শঙ্কিত হয়ে পড়েছে মার্কিন সেনাদের সাথে দোভাষী হিসেবে কাজ করা আফগান নাগরিকরা। সম্প্রতি এরকম বেশ কয়েকজন খুনও হয়েছেন। এ পরিস্থিতিতে আফগান সহযোগীদের যুক্তরাষ্ট্রে সরিয়ে নিতে শুরু করেছে যুক্তরাষ্ট্র।

দীর্ঘ প্রায় দুই দশকের অভিযানে আফগানিস্তানের স্থানীয় অনেকেরই সহায়তা নিতে হয়েছে মার্কিন বাহিনীকে। রীতিমতো বেতনের বিনিময়ে নিয়োগ দেয়া হয় অনেক দোভাষী ও ইনফরমার। মার্কিন বাহিনীর বিদায়ের পর তাদের এই সহযোগীদের ‘বেইমান’ আখ্যা দেয় তালেবান।

আফগানিস্তানে দীর্ঘদিনের এই সহযোগীদের নিরাপত্তা নিয়ে চাপ বাড়ে যুক্তরাষ্ট্রের ওপরও। ওয়াশিংটনে নানা পর্যায়ে আলোচনার পর সিদ্ধান্ত হয়, যুক্তরাষ্ট্রেই সরিয়ে নেয়া হবে তাদের। সে ধারাবাহিকতায় শুক্রবার (৩০ জুলাই) ভার্জিনিয়া পৌঁছায় দোভাষী ও তাদের পরিবারের ২২১ জনের একটি দল।

এ পর্যন্ত ৫ হাজার বিশেষ অভিবাসন ভিসা দিয়েছে কাবুল কনস্যুলেট। যুক্তরাষ্ট্রে যাওয়ার জন্য নিবন্ধন করেছে মার্কিন বাহিনীর সহযোগী আড়াই হাজার আফগান। যুক্তরাষ্ট্রে তাদের জীবনযাপন সহজ করার জন্য দীর্ঘমেয়াদী নানা পরিকল্পনাও নিয়েছে বাইডেন প্রশাসন।

ভার্জিনিয়ার ডেমোক্র্যাটিক সিনেটর টিম কেইন জানান, যুক্তরাষ্ট্রে স্থানান্তরিত আফগানদের সহযোগিতায় ১০০ কোটি ডলার বাজেট বরাদ্দ করা হয়েছে। শীঘ্রই বিশেষ অভিবাসন ভিসা ১১ থেকে ১৯ হাজারে উন্নীত করা হবে। তিনি জানান, দোভাষীরা যুক্তরাষ্ট্রে বসবাস শুরু করলে মার্কিন ইতিহাসে নতুন অধ্যায় যুক্ত হবে। তিনি জানান, কংগ্রেসে বিলটি পাস হয়ে গেছে, এখন শুধু প্রেসিডেন্টের সইয়ের অপেক্ষা।

২০০৬ সাল থেকে প্রায় ৭০ হাজার আফগান নাগরিককে যুক্তরাষ্ট্রে পুনর্বাসন করা হয়েছে। বিশেষ অভিবাসী ভিসা কর্মসূচির আওতায় তাদের আশ্রয় দেয় মার্কিন সরকার।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply