বিএসএমবি’র আয়োজনে গণিতের আন্তর্জাতিক সম্মেলন

|

বৈশ্বিক সংকট মোকাবেলায় গণিতের ভূমিকা নিয়ে ‘কমপুটেশনাল অ্যান্ড ম্যাথমেটিক্যাল বায়োলজি’ শীর্ষক দুই দিনের আন্তর্জাতিক সম্মেলনের আয়োজন করেছে বাংলাদেশ সোসাইটি ফর ম্যাথমেটিক্যাল বায়োলজি।

শুক্রবার (৩০ জুলাই) সকাল ৯ টায় শুরু হয় এই ভার্চুয়াল সম্মেলন। যেখানে বাংলাদেশের পাশাপাশি ভারত, পাকিস্তান, নেপাল, মরোক্কো, ইন্দোনেশিয়া, মালয়েশিয়া, সৌদি আরব, সংযুক্ত আরব আমিরাত, জাপান, মিয়ানমার, অস্ট্রেলিয়া, কানাডা, যুক্তরাজ্য ও যুক্তরাষ্ট্র থেকে শতাধিক গণিতবিদ নেন।

এই সম্মেলনের উদ্বোধন করেন, বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ ও জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য প্রফেসর ড. মেজবাহউদ্দিন আহমেদ। উদ্বোধনকালে তিনি বলেন, বিজ্ঞান, প্রযুক্তি, প্রকৌশল ও গণিতের সমন্বয় করলে মানবজীবনে কল্যাণ আরও ত্বরান্বিত হবে।

এসময় গণিত, জীববিদ্যা ও মেডিসিন কিভাবে পরিপূরক হিসেবে কাজ করে সে বিষয়গুলো তুলে ধরেন বক্তারা। পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষা ও করোনার মত মহামারী মোকাবেলায় গণিতের ভূমিকা নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা হয় সেমিনারে।

দুই দিনের আন্তর্জাতিক এই সম্মেলনে ৫টি সায়েন্টিফিক সেশন রাখা হয়েছে। আর গণিতের শিক্ষক, তরুণ গবেষক ও শিক্ষার্থীদের জন্য রাখা হয়েছে আরও সাতটি সেশন।

বাংলাদেশ সোসাইটি ফর ম্যাথমেটিক্যাল বায়োলজির প্রত্যাশা, এই সম্মেলনের মাধ্যমে বাংলাদেশি শিক্ষার্থী ও গবেষকদের জন্য একটি নতুন দ্বার উন্মোচন হবে। এর মাধ্যমে তারা নিজেদের কর্ম ও অভিজ্ঞতা আন্তর্জাতিকভাবে উপস্থাপন করার সুযোগ হয়েছে। এছাড়া মানবজীবনে গণিতের ভূমিকার বিষয়ে গবেষণায় নিজেদের অন্তর্ভুক্ত করতে উৎসাহ পাবে তরুণরা।

সেমিনারে ১৫ দেশের ৩৫ জন বিদেশিসহ শতাধিক গণিতজ্ঞ অংশ নিচ্ছেন। মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করছেন বিশ্বের ১১ জন গণিত বিশেষজ্ঞ। এছাড়া ৫০ এর অধিক গবেষণা উপস্থাপন করবেন তরুণ গণিতবিদরা।

আন্তর্জাতিক এ সেমিনারে স্বাগত বক্তব্য রাখেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালের গণিত বিভাগের শিক্ষক ও সম্মেলনের আহ্বায়ক অধ্যাপক চন্দ্র নাথ পোদ্দার। সম্মেলন সঞ্চালনা করেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের গণিত বিভাগের অধ্যাপক ড. ওসমান গণি। ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন সোসাইটির সাধারণ সম্পাদক ও জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের গণিত বিভাগের শিক্ষক ড. মো. হুমায়ুন কবির। সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ সোসাইটি ফর ম্যাথমেটিক্যাল বায়োলজির প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ও খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণিত বিভাগের প্রফেসর ড. মো. হায়দার আলী বিশ্বাস।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply