লঙ্কানদের স্পিন ঘূর্ণিতে ধরাশায়ী ভারত

|

ছবি: সংগৃহীত

ওয়ানিন্দু হাসারাঙ্গার স্পিন ঘূর্ণিতে সিরিজ নির্ধারণী ম্যাচে ভারতকে ধরাশায়ী করলো লঙ্কানরা। সিরিজের তৃতীয় ও শেষ ‍টি-টোয়েন্টি ম্যাচটি ৭ উইকেটে জিতে নেয় শ্রীলঙ্কা। ফলে তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ ২-১ ব্যবধানে নিজেদের করে নিয়েছে স্বাগতিকরা।

কলম্বোতে টস জিতে ব্যাট করতে নামে ভারত। ইনিংসের চতুর্থ বলেই গোল্ডেন ডাক মেরে প্যাভিলিয়নে ফিরে যান ভারতের অধিনায়ক শিখর ধাওয়ান। এরপর থেকেই শুরু হয় ভারতীয় ব্যাটসম্যানদের আসা যাওয়ার মিছিল। হাসারাঙ্গার জোড়া আঘাতে ৫ ওভার শেষেই সফরকারীদের স্কোর দাঁড়ায় ৪ উইকেটে ২৫ রান। শেষ পর্যন্ত কুলদীপ যাদব ও চেতন সাকারিয়ার প্রতিরোধ গড়লেও ১০০ পার করতে পারেনি ভারতীয় দল। দলের হয়ে সর্বোচ্চ ২৩ রান করেন কুলদীপ। শেষমেশ ৮ উইকেট হারিয়ে ২০ ওভারে ৮১ রান তুলতে সক্ষম হয়। যা এই ফরম্যাটে ভারতীয়দের তৃতীয় সর্বনিম্ন স্কোর।

লঙ্কানদের হয়ে ৯ রান দিয়ে ৪ উইকেট তুলে নেয় হাসারাঙ্গা। এছাড়া দাসুন ২টি, রামেশ মেন্ডিস ও চামীরা ১টি করে উইকেট তুলে নেয়।

টস জিতে ব্যাট করতে নেমে চতুর্থ বলেই গোল্ডেন ডাক মারেন ভারতের অধিনায়ক শিখর ধাওয়ান। তাকে আউট করেন দুষ্মন্ত চামীরা। এরপর উইকেট হারানোর মিছিল। হাসারাঙ্গার জোড়া আঘাতে ৫ ওভার শেষ হতেই তাদের স্কোর ৪ উইকেটে ২৫ রান। পরের চার উইকেট ভারত হারায় ২৭ রানের ব্যবধানে।

৮২ রানের লক্ষে ব্যাট করতে নেমে ধীরস্থির ভাবেই শুরু করে শ্রীলঙ্কা। তবে ২৩ রানেই প্রথম উইকেট হারায় তারা। রাউল চাহারের বলে ২৩ রান করে সাজঘরে ফেরেন আভিস্কা ফার্নান্দো। এরপর সাদিরা সামারাকে দ্রুত হারিয়ে বিপদ পরে যায় স্বাগতিকরা। তবে শেষ পর্যন্ত ৩৩ বল হাতে রেখে ৩ উইকেট হারিয়ে জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় লঙ্কানরা। দলের হয়ে সর্বোচ্চ রান করেন ধনাঞ্জয়া ডি সিলভা। ২০ বলে ২৩ রান করেন এই লঙ্কান অলরাউন্ডার।

অন্যদিকে, ভারতের বোলারদের মধ্যে একাই তিন উইকেট নেন রাউল চাহার। ১৫ রানে খরচ করে তুলে নেন তিন উইকেট।

এর আগে বুধবার (২৮ জুলাই) ২য় টি-টোয়েন্টিতে ভারতকে ৪ উইকেটে হারিয়ে সিরিজে সমতা ফেরায় লঙ্কানরা।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply