কুড়িগ্রামে একই পরিবারের ৭ জনসহ ৯ রোহিঙ্গা আটক

|

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি:

রোহিঙ্গা শিবির থেকে পালানো ৯ রোহিঙ্গাকে আটক করেছে কুড়িগ্রামের ভূরুঙ্গামারী উপজেলার ভ্রাম্যমাণ আদালত। পরে তাদেরকে ভূরুঙ্গামারী থানা পুলিশের নিকট হস্তান্তর করা হয়।

বুধবার (২৮ জুলাই) রাত ৮ টার দিকে তাদের আটক করা হয় যার মধ্যে ছিল ৪ শিশু ও ১ নারীসহ একই পরিবারের ৭ জন।

ভ্রাম্যমাণ আদালতের ম্যাজিস্ট্রেট উপজেলার সহকারী ভূমি কমিশনার (এসিল্যান্ড) জাহাঙ্গীর আলম বলেন, করোনার মহামারি রোধে সরকারের দেয়া লকডাউন বাস্তবায়ন করার জন্য নিয়মিত ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হচ্ছে। বুধবার রাত ৮টার দিকে উপজেলার শিলখুড়ি ইউনিয়নের কাচুর মোড়ে একটি ব্যাটারি চালিত অটোরিক্সা গাদাগাদি করে যাত্রী নিয়ে যাচ্ছিল। এসময় সেটিকে  থামানো হলে দু’জন যাত্রী নেমে পালিয়ে যায়। অটোচালকসহ বাকি ১০ জনকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হলে যাত্রীরা স্বীকার করেন তারা রোহিঙ্গা। সলিম মিয়া নামের এক ব্যক্তির মাধ্যমে তারা সীমান্ত পেরিয়ে ভারত যাবার জন্য দু’দিন আগে ভূরুঙ্গামারী এসেছেন। পরে রাত ৯টার দিকে তাদেরকে আটক করে পুলিশের নিকট সোপর্দ করা হয়।

রোহিঙ্গা আটকের বিষয়টি নিশ্চিত করে ভূরুঙ্গামারী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আলমগীর হোসেন বলেন, কক্সবাজারের উখিয়া রোহিঙ্গা ক্যাম্প থেকে তারা এসেছেন। এদের মধ্যে একই পরিবারের ৭ জনসহ ৯ জনকে পুলিশ ও ভ্রাম্যমাণ আদালত আটক করেছেন।

আটককৃতরা হলেন, কুতুবখালি-১৩ রোহিঙ্গা ক্যাম্পের আব্দুল খালেকের ছেলে ফইয়া সালাম (২৭), কুতুব আলম-২ ক্যাম্পের সিদ্দিকের ছেলে ইসমাইল হোসেন (১৮), ক্যামড়া বালু খালি-১৮ ক্যাম্পের মৃত: হাসেম আলীর স্ত্রী সাবিকা খাতুন (৫০) ও সন্তান নাছিম (১৫), রিয়াজ (১০), আছমিরা খাতুন (১৮), তাছমিনারা খাতুন (৭), রুমাজান খাতুন (৫) এবং ইসমাইল হোসেন (৩)। তাদেরকে সংশ্লিষ্ট রোহিঙ্গা ক্যাম্পে ফেরত পাঠানোর প্রক্রিয়া চলছে।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply