নোয়াখালীতে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেফতার ৩

|

নোয়াখালীতে ধর্ষণের অভিযোগে আটককৃতরা।

নোয়াখালী প্রতিনিধি:

নোয়াখালীর চাটখিল উপজেলার পরকোর্ট ইউনিয়নে এক নবম শ্রেণির ছাত্রীকে (১৫) ধর্ষণের অভিযোগে গৃহশিক্ষক ফারাবি আহম্মেদ ফয়েজকে (২৫) গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় নির্যাতিতার পরিবারকে হুমকি দেয়ার অভিযোগে অভিযুক্ত ফারাবির বাবা ও ভাইকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

আজ বুধবার (২৮ জুলাই) সকালে নির্যাতিতা ছাত্রীর বাবা বাদি হয়ে ফারাবিসহ তিনজনকে আসামি করে চাটখিল থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, নির্যাতিতা ছাত্রী পঞ্চম শ্রেণিতে পড়ার সময় থেকেই তাকে প্রাইভেট পড়াতো একই বাড়ির রুহুল আমিনের ছেলে ও গৃহশিক্ষক ফারাবি আহম্মেদ ফয়েজ। সপ্তম শ্রেণিতে পড়া অবস্থায় ফারাবি ওই ছাত্রীকে প্রেমের প্রস্তাব দেয়, এতে ছাত্রীটি রাজি না হওয়ায় তাকে বিয়ে করবে বলে আশ্বাস দেয় ফারাবি।

গত দুই বছর যাবত বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে বিভিন্ন স্থানে নিয়ে তাকে একাধিকবার ধর্ষণ করে ফারাবি। সর্বশেষ গত ৭ জুলাই ফারাবি ওই ছাত্রীকে কৌশলে তার ফুফুর রান্না ঘরে নিয়ে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। এসময় আহত ছাত্রীটির চিৎকার বাড়ির লোকজন এগিয়ে আসলে পালিয়ে যায় ফারাবি।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ঘটনাটি স্থানীয়ভাবে মীমাংসা করার চেষ্টা করলে ওই মেয়েকে বিয়ে করবে শর্তে ফারাবিকে ছাড়িয়ে নিয়ে যায় তার বাবা রুহুল আমিন। কিন্তু পরবর্তীতে তাকে বিয়ে না করে উল্টো হুমকি দিতে থাকে ফারাবির পরিবারের লোকজন। ফলে বাধ্য হয়ে গতকাল মঙ্গলবার (২৭ জুলাই) রাতে নির্যাতিতার পরিবার থানায় মৌখিক অভিযোগ করেন।

চাঁটখিল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আনোয়ারুল ইসলাম জানান, এই ঘটনায় আজ বুধবার (২৮ জুলাই) সকালে ওই ছাত্রীর বাবা বাদি হয়ে তিনজনকে আসামি করে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা দায়ের করেছেন। মামলায় অভিযুক্ত তিনজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তাদের বিচারিক আদালতের মাধ্যমে কারাগারে প্রেরণ করা হবে। নির্যাতিতা ছাত্রীর মেডিকেল পরীক্ষার জন্য হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

/এসএইচ





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply