আমেরিকান এফ-৩৫ ঠেকাতে এলো রাশিয়ার চেকমেট

|

২০২৬ সালের মধ্যে চেকমেট রফতানি শুরু করবে রাশিয়া।

মার্কিন অত্যাধুনিক যুদ্ধবিমান এফ-৩৫ কে ঠেকাতে এবার পঞ্চম প্রজন্মের স্টেলথ যুদ্ধবিমান এনেছে রাশিয়া। সর্বাধুনিক প্রযুক্তির এই ফাইটার জেটটি এ সপ্তাহেই প্রদর্শিত হয় মস্কোর আন্তর্জাতিক এয়ারশো-তে। যেকোনো রাডারকে ফাঁকি দিতে সক্ষম এই যুদ্ধবিমানে থাকছে স্থল, জল এবং আকাশে নিক্ষেপযোগ্য ক্ষেপণাস্ত্র। চেকমেট নামক এই ফাইটার জেট আগামী ২০২৬ সালের মধ্যে রফতানি শুরুর পরিকল্পনা রাশিয়ার।

যুদ্ধাস্ত্রের জন্য বিশ্বজুড়েই খ্যাতি রাশিয়ার। বুলেট, বন্দুক, মেশিনগান, আগ্নেয়াস্ত্র, যুদ্ধ জাহাজ, সাবমেরিন থেকে শুরু করে যুদ্ধবিমান, কি নেই দেশটির রফতানির তালিকায়। এবার এ তালিকায় যোগ হতে চলেছে নতুন নাম চেকমেট। পঞ্চম প্রজন্মের নতুন এই যুদ্ধবিমান পাল্টে দেবে রুশ সামরিক সক্ষমতার খতিয়ান।

শব্দের চেয়েও দ্বিগুণ গতি সম্পন্ন এই ফাইটারের সবচেয়ে বড় বিশেষত্ব, এই বিমান প্রচলিত সব ধরণের রাডারকে নিঁখুতভাবে ফাঁকি দিতে সক্ষম। এছাড়াও অন্যান্য ফাইটার জেটের তুলনায় এটি সক্ষম স্বল্প রানওয়েতে টেকঅফ করতেও।

তবে এই বিমানের সবচেয়ে বড় ফিচার হলো, এর অস্ত্রধারণ ক্ষমতা। আকাশ থেকে আকাশে, ভূমিতে এবং পানিতে, তিন স্থানেই হামলাযোগ্য ক্ষেপণাস্ত্র বহনে সক্ষম এটি। ইনফ্রারেড এবং রেডারগাইডেড দুই মাধ্যমেই ক্ষেপণাস্ত্র ছুঁড়তে পারে এই বিমান। সাথে ট্যাংক বিধ্বংসী কামান এবং রকেট তো রয়েছেই।

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন বলেন, এখানে যেটি প্রদর্শিত হচ্ছে সেটি অত্যাধুনিক যুদ্ধবিমান প্রযুক্তির ভবিষ্যৎ। এটি শুধু রুশ সামরিক সক্ষমতাই বাড়াবে না, বরং আন্তর্জাতিক বাজারেও আমাদের অপ্রতিদ্বন্দ্বী করে তুলবে।

রাশিয়ার বিখ্যাত অস্ত্র নির্মাণ প্রতিষ্ঠান সুখোই নির্মিত এক ইঞ্জিন বিশিষ্ট এই যুদ্ধবিমানের চালকহীন ভার্সন তৈরীর পরিকল্পনাও রয়েছে ভবিষ্যতে। রাশিয়ায় আয়োজিত আন্তর্জাতিক বিমান প্রদর্শনী অনুষ্ঠান ম্যাকস টুয়েন্টি টুয়েন্টি ওয়ানে প্রদর্শিত হয় চেকমেটের প্রটোটাইপ। মূলত মার্কিন ফাইটার জেট এফ-৩৫ এর বিপরীতে এই যুদ্ধবিমানকে নামাতে চায় রাশিয়া। সে বাজার ধরতেই আগামী ২০২৬ সালে যুদ্ধবিমানটি রফতানির পরিকল্পনা রাশিয়ার।

/এসএইচ





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply