স্ত্রীর প্রেমিকের নাক-কান কেটে দিলো স্বামী!

|

প্রতীকী ছবি

অন্যের স্ত্রীর সাথে সম্পর্কের জেরে পাকিস্তানে নাক-কান কাটা গেল এক যুবকের। প্রতিবেশী আবদুল কায়ুম দলবল নিয়ে তার উপর চড়াও হন এবং ছুরি দিয়ে নাক ও কান কেটে নেন বলে অভিযোগ করেন ভুক্তভোগী মোহাম্মদ আক্রম। খবর ভারতীয় গণমাধ্যম এনডিটিভির।

ঘটনাটি পাকিস্তানের লাহৌর থেকে ৩৭৫ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত পঞ্জাব প্রদেশের মুজফ্‌ফরগড়ের ঘটেছে।

পুলিশ জানিয়েছে, বৃহস্পতিবার (২২ জুলাই) কাজ শেষে বাড়ি ফিরছিলেন মোহাম্মদ আক্রম। ওই সময় কয়েক জনকে সঙ্গে নিয়ে তার উপর চড়াও হয় তারই প্রতিবেশী আবদুল কায়ুম। তখন দুইজনের মাঝে বাকবিতণ্ডা হয়। কেন কায়ুমের স্ত্রীর সঙ্গে সম্পর্কে জড়িয়েছেন, তা নিয়ে আক্রমকে হেনস্থা করতে শুরু করেন তারা।

পরবর্তীতে সবাই মিলে তাকে একটি নির্জন জায়গায় নিয়ে যান বলেও অভিযোগ পাওয়া যায়। সেখানে হাতাহাতির এক পর্যায়ে আক্রমকে সকলে মিলে চেপে ধরে এবং কায়ুম ছুরি দিয়ে তার নাক ও কান কেটে নেন বলে জানিয়েছে পুলিশ

বর্তমানে গুরুতর আহত অবস্থায় মুলতানের নিশতর হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন আক্রম। এই ঘটনায় ইতোমধ্যে কায়ুমকে গ্রেফতার করা হয়েছে এবং জেরায় তিনি অপরাধ স্বীকার করেছেন বলে জানিয়েছে পুলিশ। জিজ্ঞাসাবাদে তিনি অপরাধ স্বীকার করে নিয়েছেন বলে জানিয়েছেন পঞ্জাব প্রদেশের পুলিশ। এছাড়াও তার বাকি সহযোগীদের খোঁজ চলছে।

উল্লেখ্য, পরিবারের সম্মানরক্ষার নামে (অনার কিলিং) প্রতিবছর পাকিস্তানে ১ হাজারের বেশি মহিলা এবং ৬০০ থেকে ৮০০ পুরুষ খুন হন।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply