আফগানিস্তান সীমান্তে সেনা মোতায়েন করেছে পাকিস্তান

|

আফগানিস্তানের সীমান্ত পাকিস্তান সেন বাহিনী করেয়াছে

সীমান্ত থেকে আধাসামরিক বাহিনীর সকল সদস্যকে সরিয়ে আফগান সীমান্তে নিয়মিত সেনা সদস্যদের মোতায়েন করেছে পাকিস্তান।

আজ শনিবার (২৪ জুলাই) পাকিস্তানের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী শেখ রশিদ আহমেদ এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। শেখ রশিদ বলেন, আফগানিস্তানের সরকারি বাহিনী ও তালেবানদের সংঘর্ষের জেরে পাক-আফগান সীমান্তে উত্তেজনা ক্রমবর্ধমান। সীমান্তের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতেই প্যারামিলিটারি ফোর্স সরিয়ে সেনাবাহিনীকে দেয়া হয়েছে পাক-আফগান সীমান্ত চৌকির দায়িত্ব।

পাকিস্তানের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আরও বলেন, আফগানিস্তানে নতুন করে তালেবানদের উত্থান হওয়ায় সীমান্ত পার হয়ে বহু আফগান শরণার্থী পাকিস্তানে আশ্রয় নিচ্ছে। এসব শরণার্থীদের অনুপ্রবেশ বন্ধ করতেই সীমান্তে সেনাবাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে।

তবে আফগান গণমাধ্যম পাকিস্তানের এই দাবি মানতে নারাজ। তাদের ধারণা, তালেবাদের সহায়তার উদ্দেশ্যেই আফগানিস্তানের খাইবার-পাখতুনখোয়া এবং বেলুচিস্তান সীমান্তে অবস্থান নিয়েছে পাক বাহিনী। আফগান প্রেসিডেন্ট আশরাফ ঘানিও সম্প্রতি পাকিস্তানের বিরুদ্ধে তালেবানকে মদদ দেয়ার অভিযোগ তুলেছেন।

গত মে মাসে আফগানিস্তান থেকে যুক্তরাষ্ট্র সেনা প্রত্যাহার শুরু করার পরে দেশজুড়ে তালেবানদের সক্রিয়তা বৃদ্ধি পেয়েছে। তালেবানরা ইতোমধ্যেই ইরান সীমান্ত সংলগ্ন ইসলাম-ই-কালা ও তুর্কমেনিস্তান সীমান্ত সংলগ্ন টোরঘুন্ডি শহর নিজেদের নিয়ন্ত্রণে নিয়েছে। গত সপ্তাহের শুরুতে পাকিস্তানের বেলুচিস্তান প্রদেশ সংলগ্ন বলদাকের নিয়ন্ত্রণ নেয় তালেবানরা। এরমধ্যেই আফগানিস্তানের গোয়োন্দা প্রধান পাকিস্তানের নিরাপত্তা বাহিনী কিছু এলাকায় তালেবান যোদ্ধাদের বিমান দিয়ে সহায়তা করছে বলে অভিযোগ করেছেন । পাকিস্তান তালেবানকে সহায়তা করার অভিযোগ অস্বীকার করছে।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply