করোনাভাইরাসের উৎস সন্ধান, উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে চীন-যুক্তরাষ্ট্র সম্পর্ক

|

করোনাভাইরাসের উৎস সন্ধান ইস্যুতে উত্তপ্ত চীন-যুক্তরাষ্ট্র সম্পর্ক। ছবি: সংগৃহীত

করোনাভাইরাসের উৎস সন্ধানে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রস্তাবকে কেন্দ্র করে উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে চীন-যুক্তরাষ্ট্র সম্পর্ক। উহানে আবারও গবেষক দল পাঠাতে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা প্রস্তাব করলে তা প্রত্যাখ্যান করে চীন। এ ঘটনায় চীনকে দায়িত্বজ্ঞানহীন আখ্যা দেয় যুক্তরাষ্ট্র। তবে বেইজিংয়ের পাল্টা দাবি, মহামারি পরিস্থিতি সামলাতে নিজের দিকেই নজর দেয়া উচিত যুক্তরাষ্ট্রের।

যদিও শুরু থেকেই পশ্চিমের অভিযোগ, উহানের গবেষণাগার থেকেই ছড়িয়েছে ভাইরাস। সম্ভাব্য উৎস হিসেবে চিহ্নিত করা হয় বন্যপ্রাণীকে। এমন নানা বিতর্কের মধ্যেই চলতি বছর উহান পরিদর্শনের সুযোগ পায় বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার গবেষকরা। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার গবেষক দল উহানে গেলেও তাদের গবেষণাগারে প্রবেশের সুযোগ দেয়নি চীন।

এ অবস্থায়  চীনের উহানে আবারও বিশেষজ্ঞ দল পাঠানোর প্রস্তাব দেয় বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। তবে এই প্রস্তাবের ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানিয়ে তা নাকচ করেছে চীনের গবেষকরা।

এ বিষয়ে উহান ইন্সটিটিউট অফ ভাইরোলজির গবেষক ঝেং ইউজিন বলেন, নভেল করোনাভাইরাস কিংবা এই ধরনের কোনো ভাইরাস নিয়ে গবেষণার জন্য যে অবকাঠামো প্রয়োজন তা উহানের ল্যাবে নেই। আর পশ্চিমের দাবি অনুযায়ী ল্যাব থেকেই ভাইরাসটি ছড়ালে সেখানকার গবেষক এবং কর্মীরাও অসুস্থ হতেন। তারা তো কেউই করোনায় আক্রান্ত হননি!

এ ঘটনায় প্রতিক্রিয়া জানিয়ে মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র নেড প্রাইস বলেন, এই বিষয়টিতে শুধু আমেরিকার নয় বরং পুরো বিশ্বের নিরাপত্তা জড়িত। অথচ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রস্তাব অগ্রাহ্য করে এমন দায়িত্বজ্ঞানহীন আচরণ করলো চীন। এটা খুবই দুঃখজনক। দেশটির এমন আচরণে যুক্তরাষ্ট্র হতাশ।

যুক্তরাষ্ট্রের এমন বক্তব্যে পাল্টা প্রতিক্রিয়া জানিয়ে চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র ঝাও লিজিয়াং বলেন, করোনা মহামারি ঠেকাতে চীনের প্রচেষ্টা বিশ্ব ইতিহাসে অনন্য নজির স্থাপন করেছে। অন্যান্য দেশ যেমন ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে চীনও তেমনই ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এই পরিস্থিতিতে যুক্তরাষ্ট্রের চীনকে উদ্দেশ্য করে এমন দোষারোপ কোনোভাবেই কাম্য নয়। বরং করোনা মহামারি ঠেকাতে যুক্তরাষ্ট্র যে ব্যর্থ হয়েছে সেই দিকে নজর দেয়া উচিত দেশটির।

এ অবস্থায় বিশ্লেষকরা বলছেন, সমালোচনা-বিতর্কের পরিবর্তে আরও সহযোগীতামুলক আচরণ কাম্য চীন ও যুক্তরাষ্ট্রের পক্ষ থেকে। ভাইরাসের উৎপত্তি নিয়ে বিরোধ নয় বরং মহামারি ঠেকানোর সমন্বিত প্রচেষ্টা এই মুহূর্তে বেশি জরুরি।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply