কেন্দুয়ায় তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে ছুরিকাঘাতে অটোচালক নিহত

|

এ সময় আরও একজন অটোচালক আহত হয়েছেন। প্রতীকী ছবি।

স্টাফ রিপোর্টার, নেত্রকোণা:

নেত্রকোণার কেন্দুয়ায় তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে কথা কাটাকাটির জেরে প্রতিপক্ষের ছুরিকাঘাতে ইমরান হাসান বাবু নামের এক অটোরিকশার চালক নিহত হয়েছেন। এ সময় আরও একজন অটোচালক আহত হয়েছেন।

বৃহস্পতিবার (২২ জুলাই) সন্ধ্যায় কেন্দুয়া উপজেলার সান্দিকোনা ইউনিয়নের সাহিতপুর বাজারের অটোস্ট্যান্ডে এ ঘটনা ঘটে। হত্যাকাণ্ডে জড়িত অভিযোগে সুমন মিয়া নামে একজনকে আটক করেছে পুলিশ।

নিহত অটোরিকশার চালক ইমরান হাসান বাবু (২২) উপজেলার সাহিতপুর বাজার এলাকার চেংজানা গ্রামের শামীম মিয়ার ছেলে। আহত এখলাছ (২৫) একই গ্রামের গিয়াস উদ্দিনের ছেলে। আটককৃত সুমন উপজেলার আটিগ্রামের বাসিন্দা।

স্থানীয়দের বরাত দিয়ে কেন্দুয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কাজী শাহ নেওয়াজ বলেন, আটিগ্রাম ও চেংজানা একই ইউনিয়নের পাশাপাশি গ্রাম। বৃহস্পতিবার দুপুরের পর চেংজানা গ্রামের বাবুর সঙ্গে আটিগ্রামের সুমনের তর্ক বিতর্ক হয়। এরই জেরে সন্ধ্যার দিকে বাবুর ওপর চড়াও হন তারা। ঘটনা দেখে চেংজানা গ্রামের এখলাছ মিয়া এগিয়ে যান বাবুকে বাঁচাতে। এ সময় ছুরিকাঘাতে বাবু ও এখলাছ দুইজনই গুরুতর আহত হন। স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠিয়েছে। সেখানে নেওয়ার পরপরই ইমরান হাসান বাবু মারা যান। বাবুর লাশ ময়নাতদন্তের জন্যে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসাপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

এই পুলিশ কর্মকর্তা আরও জানান, ঘটনার পরপরই চেংজানা গ্রামবাসীর মধ্যে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মঈন উদ্দিন খন্দকার সেখানে গিয়ে এলাকাবাসীকে শান্ত করেন। পুলিশও সেখানে অবস্থান করছে। বর্তমানে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।

এ ব্যাপারে থানায় হত্যা মামলা করার প্রস্তুতি চলছে বলেও জানান ওসি।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply