গরীবের আইফোন এক্স!

|

স্মার্টফোনের জগতে সবচেয়ে কুলীন ধরা হয় অ্যাপলের আইফোনকে। এর সর্বশেষ মডেল আইফোন এক্স বাজারে এসেছে কয়েক মাস হলো। স্টেট অব দ্য আর্ট ডিজাইন আর প্রযুক্তির অভিনবত্বের জন্য ফোনটি গ্যাজেটপ্রেমীদের কাছে পরম কাঙ্ক্ষিত। কিন্তু সমস্যা হলো এর দামটা। লাখ টাকার মোবাইল কেনার সামর্থ্য ক’জনারই বা আছে। বাকিদের শখ পূরণে চীনা কোম্পানী লিগু নিয়ে এলো এস-নাইন স্মার্টফোন, যাকে অবলীলায় চালিয়ে দেয়া যায় ‘গরীবের আইফোন’ বলে। হবেই বা না কেন, এর দাম মাত্র দেড়শ ডলার।

প্রথম দর্শনেই ফোনটির যে বৈশিষ্ট্য চোখে পড়বে, তা হলো ডিসপ্লে। ওপরের অংশের ডিজাইনটা হুবহু আইফোন এক্সের মতো, যাকে বলা হচ্ছে ‘নচ ডিসপ্লে’। বার্সেলোনায় মোবাইল ওয়ার্ল্ড কনফারেন্সে এই ফোনকে লিগু পরিচিত করিয়েছে, ‘বিশ্বের প্রথম অ্যান্ড্রয়েড নচ ডিসপ্লে স্মার্টফোন’।

তবে শুধু ডিসপ্লেই নয়, অন্যান্য দিকেও আইফোনকে অনুকরণ করেছে ফোনটি। আইফোনের মতো এটিও ফেস আনলক ফিচার রেখেছে যা দশমিক ১ সেকেন্ডের মধ্যে কাজ করবে।

এস-৯ ফোন ইন্টারফেসে ‘হোম’ আর ‘ব্যাকে’ যাওয়ার ফাংশনটাও আইফোন এক্সের মতো। এমনকি পেছনে যে ডুয়াল ক্যামেরা রয়েছে সেটার পজিশনও একই জায়গায়।

দেড়শ ডলারের ফোনটিতে থাকছে ৫.৮৫ ইঞ্চি এইচডি প্লাস ডিসপ্লে। পেছনে ১৩ ও ২ মেগা পিক্সেলের ক্যামেরায় ব্যবহার করা হয়েছে সনির লেন্স। আছে ১.৫ গিগাহার্জের অক্টাকোর প্রসেসর, ৪ গিগাবাইট র‍্যাম আর ৩৩শ মিলিঅ্যাম্পিয়ার ব্যাটারি।

ডিজাইন আর ফিচার বিবেচনায় এই দামে এর চেয়ে ভালো আইফোন ক্লোন হতে পারে না। পুরদস্তুর আইফোনকে কপি করা সেটটির নামের সাথে কিন্তু মিল পাওয়া যায়, অ্যাপলের সবচেয়ে বড় প্রতিপক্ষ স্যামসাংয়ের গ্যালাক্সি সিরিজের।

যাই হোক, এখন পর্যন্ত শুধু এস নাইনের দামটাই জানা গেছে। ফোনটি কবে বাজারে আসছে সে বিষয়ে কোন কিছু জানায়নি চীনা কোম্পানিটি।









Leave a reply