‘ভারতীয়দের সৃজনশীলতার অভাব রয়েছে’!

|

বিশ্বের অন্যতম ধনবান ও ক্ষমতাশালী কোম্পানি গুগলের প্রধান নির্বাহী সুন্দর পিচাই একজন ভারতীয়। নাসায় কাজ করা মহাশূন্যচারী সুনিতা উইলিয়ামস একজন ভারতীয়।

ভারতীয়রা সৃজনশীল, হাল আমলের অনন্য এই দুই উদারহরণই কি যথেষ্ট নয়? এক কথায় যে কেউ স্বীকার করবেন, অবশ্যই যথেষ্ট; এ বিষয়ে প্রায় সন্দেহহীন থাকা যায়। তাই আর পুরনো ইতিহাসে না যাওয়াই ভালো; তখন আবার ভারতীয়দের সৃজনশীলতার মহাভারত লিখতে হবে।

কিন্তু এ কি বলা হচ্ছে? ভারতীয়রা সৃজনশীল নয়। চায়ের কাপে ঝড় তোলা কোনো আড্ডায় কাউকে খেপাতে নয়, স্টিভ জবসের সঙ্গে অ্যাপলের সহ-প্রতিষ্ঠাতা স্টিভ ওজনিয়াক স্বয়ং এ কথা বলেছেন!

এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, “ভারতীয়রা সৃজনশীল না। দেশটির শিক্ষা ব্যবস্থায় প্রচুর পরিমাণে পঠন-পাঠন কেন্দ্রিক। এখানে সৃজনশীলতাকে উৎসাহিত করা হয় না।”

ওজনিয়াক বলেন, “গুগল, ফেসবুক কিংবা অ্যাপলের মতো কোনো কোম্পানির উদ্ভব ভারতে ঘটবে না।” ভারতীয় ইনফোসিস একটি বড় প্রযুক্তি কোম্পানির উদাহরণ হলেও এটিও সৃজনশীল নয় বলে তিনি মন্তব্য করেন। এই কোম্পানিটি কোনোদিনই বৈশ্বিক নেতৃত্বদানকারী প্রযুক্তি কোম্পানি হবে না বলেও ওজনিয়াক মনে করেন।

তিনি বলেন, “এখানে সাফল্য বলতে পড়াশোনা, ভালো ফলাফল, এবং একটি চাকরি পাওয়াকে বোঝায়। অনেকটা সিঙ্গাপুরের শিক্ষা ব্যবস্থার মতো-পড় আর পড়, কঠোর পরিশ্রম কর, একটি এমবিএ ডিগ্রি নাও, এবং তোমার একটি মার্সিডিজ গাড়ি থাকবে। কিন্তু সৃজনশীলতা কোথায়?”

স্টিভ জবসের এই সহ-যোদ্ধা বলেন, “আপনার চালচলন যখন একটি কাঠামোতে বদ্ধ থাকবে, তখন আপনার মাথা থেকে সৃজনশীলতা হারিয়ে যাবে।”

যমুনা অনলাইন: এফএইচ









Leave a reply