খালিয়াজুরীতে জলমহাল দখল নিয়ে সংঘর্ষে আহত ২০

|

কামাল হোসাইন: গত তিন মাসে নেত্রকোনার হাওরাঞ্চলে জলমহাল দখলকে কেন্দ্র করে দু’পক্ষের সংঘর্ষে ২জন নিহত ও আহত হয়েছে অন্তত পঞ্চশ জন। আজ বুধবার দুপুরে আবারও জলমহাল দখলকে কেন্দ্র করে দু’পক্ষের আহত হয়েছে কমপক্ষে ২০ জন। গুরুতর আহত ১২ জনকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।

এসময় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ ১০ রাউন্ড ফাঁকা গুলি বর্ষণ করেছে। বর্তমানে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে বলে দাবী পুলিশের।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, বুধবার দুপুরের দিকে খালিয়াজুরী উপজেলা গাজীপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোঃ আতাউর রহমান ও একই ইউনিয়নের পাঁচহাট গ্রামের ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি আব্দুল মোমিন তালুকদারের পক্ষের মধ্যে বেকি বিলের দখল নিয়ে সংঘর্ষ হয়। একপর্যায়ে খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে ফাঁকাগুলি করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

পুলিশ জানায়, খালিয়াজুরী হাওরের বেকি জলমহাল দখল নিয়ে আতাউর রহমান ও আব্দুল মোমিন তালুকদারের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছে। এ ঘটনার জের ধরে বুধবার দু’পক্ষ তুমুল সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। প্রায় ঘন্টাব্যাপী সংঘর্ষে উভয়পক্ষের ২০ জন আহত হয়েছে। আহতদের মধ্যে জামাল (৫০), সাবান (৪০), আবু বক্কর (৩৫), নোমান মিয়া (১৮), মামুন (৩০), মজত আলী (৫০), মঙ্গল মিয়া (৫০), মুশফিকুর (২৪), সাবান মিয়া (৪০), মঞ্জিল (৪৮), মুখলেছ (৩৫), বুলবুল (২৮) কে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।

আব্দুল মোমিন তালুকদার জানান, নিম্ন আদালত আমাদের পক্ষে রায় দিয়েছে। তাছাড়া হাইকোর্টেও বিচারাধীন রয়েছে। কিন্তু পুলিশ নিয়ম বর্হিভূত ভাবে প্রতিপক্ষকে সুযোগ দিয়ে বিবাদের সৃষ্টি করেছে।

অন্যদিকে আতাউর রহমানের মুঠোফোনে যোগাযোগ করে তাকে পাওয়া যায়নি।

খালিয়াজুরী থানার ওসি মোঃ হযরত আলী জানান, আমরা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখার জন্য চেষ্টা করছি। দুপুরে দু’পক্ষের সংঘর্ষে ২০ জন আহত হয়েছে। ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে।

উল্লেখ্য, নেত্রকোনার হাওরাঞ্চলে জল মহাল দখলকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষে ডিসেম্বরে ১ ও জানুয়ারীতে ১ জন নিহত হয়েছে।

 









Leave a reply