যথাসময়ে পরিবেশ অধিদপ্তরের ছাড়পত্র না পেলে নীরবতাই সম্মতি: প্রধানমন্ত্রী

|

নির্ধারিত দিনের মধ্যে পরিবেশ অধিদপ্তরের ছাড়পত্র না পেলে, সেই নীরবতাকে সম্মতি হিসেবে গ্রহণ করতে পারবেন আবেদনকারী। জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায় এমন অনুশাসন দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

সভায় নির্দেশ দেওয়া হয়, আবেদন নিষ্পত্তির নামে কোনোভাবেই সময় অপচয় করতে পারবে না পরিবেশ অধিদপ্তর। এছাড়াও এই সভায় ১৭ হাজার কোটি টাকার প্রাইমারি স্কুল ফিডিং প্রকল্প সংশোধনের জন্য ফেরত পাঠানো হয়।

পরিবেশ অধিদফতরের ছাড়পত্র সহজে না পাওয়ার অভিযোগ দীর্ঘদিনের। শিল্প কারখানা তো ছাড়াও যে কোনো বড় প্রকল্প শুরুর আগে অনাপত্তির জন্য এখানে ধরনা দিতে হয় ব্যবসায়ীদের।

যদিও বিধিমালায় নির্দেশ রয়েছে, আবেদন নিষ্পত্তি করতে হবে সর্বোচ্চ ৬০ দিনের মধ্যে, তবুও পরিবেশ অধিদপ্তরের সাড়া পাওয়া না অনেক সময়। অবশ্য এই বিভাগকে তোয়াক্কা না করে অবৈধ স্থাপনা নির্মাণের নজিরও রয়েছে।

মঙ্গলবার একনেকের সভায় পরিবেশ অধিদফতরের কাজের গতি নিয়ে হতাশা প্রকাশ করেন প্রধানমন্ত্রী। তার অনুশাসন, নির্ধারিত সময়ের মধ্যে আবেদনের ইতিবাচক কিংবা নেতিবাচক সাড়া দিতে হবে কর্মকর্তাদের। তা না করলে, নীরবতাকেই সম্মতি হিসেবে ধরে নেবেন আবেদনকারীরা।

একনেকে সিদ্ধান্ত হয়, নারায়ণগঞ্জে তৈরি হবে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) স্থায়ী স্থাপনা। বলা হয়, সেখানে কোনো সীমান্ত না থাকলেও, আশপাশের শিল্পাঞ্চলের নিরাপত্তা রক্ষায় পুলিশকে সহায়তা করবে এই বাহিনী।

একনেকের এই সভায় ৫ হাজার ২৩৯ কোটি টাকা ব্যয়ে পৃথক ৯টি প্রকল্প অনুমোদন পায়।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply