ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় সাংবাদিককে মারধরের ঘটনায় একজন গ্রেফতার

|

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি:

মঙ্গলবার (১ জুন) দুপুরে ব্রাহ্মণবাড়িয়া রেলওয়ে স্টেশনের প্লাটফর্মে মানববন্ধন কর্মসূচি চলাকালে এক সাংবাদিককে মারধরের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় একজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আনিসুর রহমান গ্রেফতারের ঘটনা নিশ্চিত করেন।

আটক রোমান হোসেন শহরের কাজিপাড়া এলাকার বাসিন্দা। অপর অভিযুক্ত ‘সৈনিক লীগ’ নামক এক সংগঠনের নেতা জুম্মান। রোমান তার ভাই। হামলায় আহত সাংবাদিক শাহাদৎ হোসেনকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করা হয়েছে। তিনি ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় প্রথম আলোর নিজস্ব প্রতিবেদক।

শাহাদৎ হোসেন মঙ্গলবার (১ জুন) রাতে যমুনা টেলিভিশনকে জানান হেফাজতের তাণ্ডবে ক্ষতিগ্রস্ত ব্রাহ্মণবাড়িয়া রেলস্টেশন পুনরায় চালুর দাবিতে মঙ্গলবার মানববন্ধনের আয়োজন করে সচেতন ব্রাহ্মণবাড়িয়াবাসী। এতে আওয়ামী লীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ, ছাত্রলীগসহ বিভিন্ন সংগঠন অংশগ্রহণ করে। জেলার অন্য সাংবাদিকদের সাথে তিনিও সেখানে সংবাদ সংগ্রহ করতে গিয়েছিলেন।

শাহাদৎ হোসেন বলেন, মানববন্ধন চলাকালে স্টেশনের গেইট কিপার মুরাদুল ইসলামকে রোমান নামের এক যুবক মারধর করে। মুরাদুল বিষয়টি আমাকে জানালে আমি যুবলীগ নেতা ভিপি হাসান সারোয়ারকে জানাই।

হাসান সারোয়ারকে জানানোর কারণেই রোমান তাকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে এবং একপর্যায়ে তার ভাই সৈনিক লীগের নেতা জুম্মান কিছু বুঝে ওঠার আগেই মারধর শুরু করে। পরে উপস্থিত সাংবাদিকরা তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যায়।

এই ঘটনায় রোমান ও জুম্মনকে আসামি করে সদর থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন সাংবাদিক শাহাদৎ হোসেন।

এই ব্যাপারে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মোজাম্মেল হোসেন জানান, ঢাকায় পালিয়ে যাওয়ার সময় বিকেলে রোমানকে তাকে আটক করেছে পুলিশ।

এই ঘটনায় বিক্ষুব্ধ সাংবাদিকরা তাৎক্ষণিকভাবে ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেসক্লাবে জড়ো হয়ে ঘটনার তীব্র নিন্দা জানায়।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply