নারায়ণগঞ্জে প্রকাশ্যে যুবক খুন

|

স্টাফ করেসপনডেন্ট, নারায়ণগঞ্জ:

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে সোলাইমান (৩০) নামের এক যুবককে প্রকাশ্যে ইট দিয়ে মাথা থেঁতলে ও কুপিয়ে হত্যা করেছে প্রতিক্ষের লোকজন। মঙ্গলবার (১ জুন) দুপুরে উপজেলার তারাব পৌরসভা এলাকায় এ হত্যাকাণ্ড সংঘঠিত হয়।

নিহতের পরিবারের দাবি যুবলীগ কর্মী সোলায়মানের সঙ্গে স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান তোফায়েল আহমেদের দ্বন্দ্বের জের ধরেই ডেকে নিয়ে নৃশংসভাবে হত্যা করা হয়েছে। নিহত সোলাইমান (৩০) উপজেলা পরিষদ চত্বর এলাকার মজিদ শিকদারের ছেলে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, তোফায়েল আহমেদ আলমাছের সাথে সোলায়মানের আধিপত্য বিস্তার নিয়ে দ্বন্দ্ব চলে আসছিলো। এ নিয়ে বেশ কয়েকদফা তাদের মধ্যে সংর্ষষও হয়েছে।

সবশেষ ২৮ মে চেয়ারম্যান ও সোলায়মান সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এ
নিয়ে চেয়ারম্যান আলমাছ বাদি হয়ে সোলায়মানসহ ২৫ জনকে আসামি করে
মামলা দায়ের করেন।

মঙ্গলবার দুপুরে নামাপাড়া বালুর মাঠে সোলায়মানকে কয়েকজন এলোপাথারি কোপানো শুরু করলে গ্রামবাসী লোঠিসোটা নিয়ে তাদের ধাওয়া করে। এসময় সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়। পরে তাকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। নিহতের মাথা থ্যাঁতলানো ও শরীরে বিভিন্ন জায়গায় ধারালো অস্ত্রের আঘাতের
চিহ্ন রয়েছে।

এ ব্যাপারে রূপগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল ফয়সাল মো.
সায়েদ বলেন, নিহত সোলাইমানের বিরুদ্ধে একাধিক মামলা আছে। কারা কী
কারণে তাকে হত্যা করলো সে বিষয়ে আমরা এখনও পর্যন্ত কোনো তথ্য পাইনি। লাশ ময়নাতদন্তের পর পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হবে।

তবে মামলার বিষয়ে নিহতের পরিবারের দাবি, চেয়ারম্যান ও তার সমর্থকরা সন্ত্রাসী হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করার জন্যই সোলাইমানের নামে অন্তত ১২টি মামলা দায়ের করেছেন।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply