নড়াইলের পাংখারচর গ্রামে বাড়িঘর ভাঙচুরের অভিযোগ

|

এলাকায় আধিপত্য বিস্তার নিয়ে নড়াইলের লোহাগড়া উপজেলার পাংখারচর গ্রামে বাড়িঘর ভাঙচুর করে টাকা ও স্বর্ণালংকার লুটপাটের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

রোববার রাত ১২টার দিকে পাংখারচর গ্রামের বুলবুল কাজী গ্রুপের ৫টি বাড়িতে প্রতিপক্ষের লোকজন ব্যাপক ভাঙচুর এবং লুটপাট করেছে বলে অভিযোগ করেন ক্ষতিগ্রস্তরা।

বুলবুল কাজীসহ তার লোকজন জানান, এলাকায় আধিপত্য বিস্তার নিয়ে প্রতিপক্ষ লিচু কাজীর লোকজন রাতের অন্ধকারে তাদের বাড়িঘরে হামলা চালায়। এ হামলায় ৫টি ফ্রিজ, টেলিভিশন, ড্রেসিংটেবিল, ৪টি শোকেস, ২টি করে আলমারি ও সোফাসেট ভাঙচুর করা হয়েছে। এছাড়া বুলবুল কাজীর ঘর থেকে ২ লাখ টাকা ও দুই ভরি স্বর্ণালংকার, লুলু কাজীর ঘর থেকে ৮৩ হাজার ৩০০ টাকা এবং চার ভরি স্বর্ণালংকার লুট করে নিয়ে গেছে।

এছাড়াও ঘরের আসবাবপত্র, রান্নাঘর, বাথরুম, চুলা, জমির দলিলপত্র, বৈদ্যুতিক মিটার, টিউবওয়েল, মোটরসাইকেল ও মোবাইল ফোনসহ বিভিন্ন মালামালের
ক্ষতি করা হয়েছে। তবে প্রতিপক্ষের লোকজন বাড়িঘর ভাঙচুর ও লুটপাটের বিষয়টি অস্বীকার করেছে।

ভুক্তভোগীরা জানান, ঈদের পরে নড়াইল-২ আসনের সংসদ সদস্য মাশরাফী দুই পক্ষকে শান্ত থাকার জন্য বলে যান। আজ সোমবার সালিশের মাধ্যমে মীমাংসা হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু প্রতিপক্ষ আপোষ মীমাংসার গুরুত্ব না দিয়ে গতরাতে এই হামলা চালিয়েছে। আমরা এর সুষ্ঠু সমাধান চাই।

এ ব্যাপারে লোহাগড়া থানার ওসি সৈয়দ আশিকুর রহমান বলেন, নড়াইল-২ আসনের সংসদ সদস্যের উপস্থিতিতে আমরা পাংখারচর গ্রামের দ্বন্দ্ব-সংঘাত মেটাতে চেষ্টা করি। তবুও দুইপক্ষের মধ্যে বাড়িঘর ভাঙচুরের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় সোমবার দুপুর পর্যন্ত থানায় কেউ অভিযোগ করেনি।

ইউএইচ/





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply