১৩ রুশ নাগরিকের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন

|

ডোনাল্ড ট্রাম্পের ক্ষমতা গ্রহণের পর থেকে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ‘রুশ হস্তক্ষেপ’ নিয়ে জল কম ঘোলা হয়নি। এবার এ অভিযোগে ১৩ জন রুশ নাগরিকের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেছে মার্কিন কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা (এফবিআই)।

শুক্রবার মুয়েলার তদন্ত কমিটি ৩৭ পৃষ্ঠার একটি অভিযোগপত্র দিয়েছে। গত বছরের মে মাসে আইনজীবী রবার্ট মুয়েলারকে এ বিষয়ে তদন্তের দায়িত্বভার দেওয়া হয়েছিল।

অভিযোগের তালিকায় রাশিয়ান প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের ঘনিষ্ঠ সহযোগী ইয়েভজিনি প্রিগোজিন-এর নামও রয়েছে। এ ছাড়া, ইন্টারনেট সেবাদানকারী ৩টি প্রতিষ্ঠানকে এ তালিকায় রাখা হয়েছে।

অভিযোগপত্রে  বলা হয়েছে,  ২০১৪ সাল থেকেই মার্কিন রাজনীতিতে ফাটল সৃষ্টিতে ‘লাখতা প্রকল্প’ শুরু করে রাশিয়া। ২০১৬ সালের নির্বাচনকে ব্যবহার করে তুরুপের তাস হিসেবে।

অভিযোগ আমলে নিয়ে এরই মধ্যে রাশিয়ার ১৩ জন নাগরিক ও ৩টি প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেছে ফেডারেল ব্যুরো অফ ইনভেস্টিগেশন (এফবিআই)।

তদন্তে আরও উঠে এসেছে, অভিযুক্তদের তিন জন জড়িত ছিলেন টেলিফোনে আড়িপাতার কাজে। মার্কিনি পরিচয়ে ছদ্মবেশ ধারণ করেছিলেন পাঁচ জন। এ ছাড়া, নির্বাচনী প্রচারণায় অর্থ ব্যয় ও হিলারি’র বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালানোর অভিযোগও স্পষ্ট।

তাৎক্ষণিক এক প্রতিক্রিয়ায় ‘সব অভিযোগ’-কে ‘হাস্যকর’ বলে উড়িয়ে দিয়েছে মস্কো। রুশ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র মারিয়া জাখারোভা বলেছেন,”যুক্তরাষ্ট্রের এতো বড় প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে হস্তক্ষেপ করেছেন মাত্র ১৩ রুশ নাগরিক!”

তিনি বলেন, “অভিযোগপত্রে বলা হয়েছে, বিলিয়ন ডলারের প্রকল্পে তাদের আমরা গোপনে নিয়োগ দিয়েছি। অত্যাধুনিক প্রযুক্তির মাধ্যমে তারা গুপ্তচরবৃত্তি করেছেন, এটা হাস্যকর নয়তো আর কি?”

যুক্তরাষ্ট্রের ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল রড রোজেনস্টেইন এ প্রসঙ্গে বলেন, “যুক্তরাষ্ট্রের বিরুদ্ধে এটা রাশিয়ার এক প্রকার তথ্যযুদ্ধ। মার্কিন রাজনীতিতে বিরোধ ও মতানৈক্য ছড়ানোর জন্যেই দীর্ঘদিন ধরে তারা কাজ করছিল।”

এদিকে এ ঘটনায় স্বস্তি প্রকাশ করে ডোনাল্ড ট্রাম্প টুইট বার্তা দিলেও বিশ্লেষকরা বলছেন, শিগগিরই ছাড় পাচ্ছেন না প্রেসিডেন্ট। কেননা, মুয়েলারের অভিযোগপত্র আদালতে উঠলেই প্রশ্নবিদ্ধ হবে রিপাবলিকান শিবির।

তদন্ত প্রতিবেদনের তথ্য অনুসারে, রুশ গুপ্তচরদের পরবর্তী লক্ষ্য যুক্তরাষ্ট্রের আগামী মধ্যবর্তী নির্বাচন ।

যমুনা অনলাইন: এফএইচ









Leave a reply