সাহিনুদ্দিনকে কুপিয়ে হত্যার কথা স্বীকার করেছে সুমন বেপারী

|

পল্লবীর সাহিনুদ্দিনকে প্রকাশ্যে কুপিয়ে হত্যার ঘটনায় মামলার অন্যতম আসামি সুমন বাহিনীর প্রধান সুমন বেপারী হত্যার কথা স্বীকার করেছে। ডিবি পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে সুমন জানায়, সাবেক এমপি আউয়ালের হয়ে এলাকায় কাজ করতো তারা। রিমাণ্ডে হত্যার সঙ্গে জড়িত আরো বেশ কয়েকজনের নাম এসেছে। তবে তদন্তের স্বার্থে এখনই বিস্তারিত জানায়নি পুলিশ।

রাজধানীর পল্লবীতে শাহিনুদ্দিন হত্যার ঘটনায় লক্ষ্মীপুর-১ আসনের সাবেক এমপি ও তরীকত ফেডারেশনের সাবেক মহাসচিব এম এ আউয়াল এখন পুলিশের রিমান্ডে। এছাড়া হত্যাকাণ্ডে নেতৃত্ব দেওয়া সুমন বাহিনীর প্রধান সুমন বেপারি, সহযোগী রকি, মুরাদসহ আরও দু’জন আছেন ডিবির রিমান্ডে।

ডিসি (ডিবি) মানস কুমার পোদ্দার জানান, জিজ্ঞাসাবাদে সাহিনুদ্দিন হত্যার কথা স্বীকার ছাড়াও আরও তথ্য দিয়েছে সুমন। তবে, তদন্তের স্বার্থে এখনই বিস্তারিত জানানো যাচ্ছে না।

শাহীনের মা আকলিমা বলেন, সবাই তো ধরা পড়েনি, ওদের দলের অনেকে বাহিরে আছে। হত্যাকাণ্ডের ক’দিন আগেও শাহীনকে মারতে এসেছিলো সুমন বাহিনীর সন্ত্রাসীরা। এখনও ভয় ভীতি দেখাচ্ছে।

পল্লবী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ওয়াজেদ আলী জানান, শাহিনুদ্দিনকে হত্যার সঙ্গে জড়িতরা বেপরোয়া। ঘটনার কদিন আগেও জেলে ছিলো সুমন বাহিনীর অধিকাংশ সদস্য।

উল্লেখ্য, গত ১৬ মে বিকেলে রাজধানীর পল্লবীর ডি ব্লকের ৩১ নম্বর রোডে শাহিনুদ্দিনকে কুপিয়ে হত্যা করে সন্ত্রাসীরা।









Leave a reply