শুরু হচ্ছে হজের মূল আনুষ্ঠানিকতা

|

পবিত্র হজ পালনের উদ্দেশ্যে মঙ্গলবার এশার নামাজের পর মিনার উদ্দেশে রওনা দেবেন লাখো মুসল্লি। বুধবার থেকে হজের মূল আনুষ্ঠানিকতা। আগামী ৫ দিন মিনা, আরাফাত, মুজদালিফা ও মক্কায় অবস্থান করে হজ সম্পন্ন করবেন ধর্মপ্রাণ মুসল্লিরা। সৌদি প্রশাসন সামগ্রিক পরিস্থিতি নির্বিঘ্ন করতে নিয়েছে নানা প্রস্তুতি জোরদার করা হয়েছে বাড়তি নিরাপত্তা ব্যবস্থা।

নানা বর্ণের লাখো মুসল্লির মিলনমেলায় পরিণত হয়েছে পবিত্র নগরী মক্কা। ধর্মপ্রাণ মানুষের পদচারণায় মুখরিত পবিত্র কাবা শরীফ। মহান আল্লাহ’র দরবারে গুনাহ মাফের প্রার্থনা করছেন সবাই।

এবার হজ করবেন কমপক্ষে ২০ লাখ মানুষ। এর মধ্যে, সৌদি আরবের বাইরের মানুষই, ১৭ লাখ ৩৫ হাজার। সবচেয়ে বেশি মুসল্লি গেছেন, ইন্দোনেশিয়া থেকে। হজের প্রক্রিয়া নির্বিঘ্ন করতে চেষ্টার কমতি নেই সৌদি সরকারের।

কাবা ও মসজিদে নববী বিষয়ক বিভাগের সাধারণ ব্যবস্থাপক আমজাদ আল-হাজমি বলেন, ‘মুসল্লিদের যেনো কোন সমস্যা না হয় সে ব্যাপারে পুরোপুরি প্রস্তুত আমরা। বিভিন্ন ছোট ছোট অংশে দায়িত্ব ভাগাভাগি করে দেয়া হয়েছে। যেকোন পরিস্থিতিতে মুসল্লিদের সমস্যা বা জিজ্ঞাসা মেটাতে মাঠে সক্রিয় রয়েছেন স্বেচ্ছাসেবীরা।’

হজ করতে আসা একজন বলেন, ‘প্রথমবারের মতো কাবাশরীফ দেখলাম। প্রশান্তিতে মনটা ভরে গেলো। আল্লাহর কাছে শুকরিয়া জানাই আমাকে এই সৌভাগ্য দেয়ার জন্য।’

৮ জিলহজ, বুধবার সারাদিন মিনায় অবস্থানশেষে পরদিন আরাফাতের ময়দানের উদ্দেশে রওনা হবেন মুসল্লিরা। মুজদালিফায় রাত যাপন শেষে শয়তানকে মারার জন্য পাথর সংগ্রহ করে ১০ জিলহজ আবারো মিনায় ফিরবেন হাজিরা। এরপর, ১১ ও ১২ জিলহজ হজ্বের বাকি আনুষ্ঠানিকতা শেষ করবেন লাখো মুসল্লি।

যমুনা অনলাইন: আরএএম





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply