হামাসের পাল্টা প্রতিরোধে ৭ ইসরায়েলির প্রাণহানি

|

বিশ্বের সবচেয়ে শক্তিশালী প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা আয়রন ডোমের প্রতিরোধ ব্যুহকে ভেদ করে একের পর হামাসের রকেট আছড়ে পড়ছে ইসরায়েলি ভূমিতে। স্থানীয়ভাবে তৈরী স্বল্প পাল্লার কাসাম রকেটের পাশাপাশি ইরানে নির্মিত মাঝারি পাল্লার ফজর রকেটও রয়েছে হামাসের অস্ত্রাগারে। এখন পর্যন্ত রকেট হামলায় প্রাণ গেছে ৭ ইসরায়েলির। ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে তেল শোধনাগার, চেকপোস্টসহ বিভিন্ন স্থাপনা।

বিশ্বের সবচেয়ে শক্তিশালী সামরিক বাহিনীর হামলায় ধ্বংসস্তুপে পরিণত হয়েছে ফিলিস্তিন। প্রতিদিন হামলায় মারা যাচ্ছে শিশু-নারীসহ অসংখ্য মানুষ। বিবর্ণ এক ঈদ উদযাপন করলো হামাসবাসী।

স্থানীয়ভাবে তৈরি কাসাম সিরিজের রকেট ব্যবহার করে পাল্টা প্রতিরোধ গড়ে তোলার চেষ্টা করছে হামাসের মানুষ। এর পাশাপাশি ইরানে নির্মিত মাঝারি পাল্লার ফজর রকেটও ব্যবহার করা হচ্ছে। আর এতেই দিশেহারা ইসরায়েল।

ইসরায়েলিদের মনোবলে বড় ধরনের ধাক্কা দিতে পেরেছে হামাস। স্বল্প পাল্লার এসব রকেট প্রায় ১৬ কিলোমিটার দূরত্বে যেতে সক্ষম। হামাসের পাল্টা প্রতিরোধে ইসরায়েলিদের মাঝে ছড়িয়ে পড়েছে আতঙ্ক । আয়রন ডোমের সাইরেন বেজে উঠলেই প্রাণ বাঁচাতে ছুটছে ইসরায়েলিরা।

আয়রন ডোমের প্রতিরোধ বুহ্য ভেদ করে এসব রকেট ইসরায়েলি ভূমিতে আছড়ে পড়ায় প্রশ্ন উঠেছে সর্বাধুনিক প্রযুক্তির প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা নিয়েও। আগে প্রায় ৯৮ শতাংশ রকেটকেই প্রতিরোধ করতে পারতো আয়রন ডোম। এবার সেখানে আয়রন ডোমকে ফাঁকি দিয়ে ইসরায়েলি স্থাপনায় আঘাত হেনেছে বেশ কয়েকটি রকেট। এর কারণ হিসেবে বলা হচ্ছে, একবারে শত শত রকেট ছোড়ার কারণে তা ঠেকাতে ব্যর্থ হচ্ছে আয়রন ডোম।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply