ভালোবাসা দিবস উদযাপন শরীয়াহ পরিপন্থী নয়: সৌদি আলেম

|

পশ্চিমা বিশ্বের পাশাপাশি সৌদি আরবেও এ বছর ভ্যালেন্টাইনস ডে বা বিশ্ব ভালোবাসা দিবস উদযাপিত হয়েছে। কাগজে কলমে সৌদিতে ভালোবাসা দিবস পালন নিষিদ্ধ হলেও, সে আইন এখন অনেকটাই শিথিল।

পরিবর্তনের যে হাওয়া সৌদি আরবে বইছে, এ যেন তারই আরেক দৃষ্টান্ত। সৌদি আরবের শীর্ষস্থানীয় এক আলেম ভ্যালেন্টাইন্স ডে প্রসঙ্গে বলেছেন, বিশ্ব ভালোবাসা দিবস উদযাপন শরীয়াহ আইনের পরিপন্থী নয়।

মক্কা নগরীর সাবেক ধর্মীয় পুলিশ প্রধান আহমেদ কাসিম আল গামদি বুধবার টেলিভিশনে দেয়া সাক্ষাতকারে বলেন, ভ্যালেন্টাইন ডে একটি ইতিবাচক সামাজিক আচার। এর সাথে ধর্মের কোন সম্পর্ক বা বিরোধ নেই।

সৌদি আরবের রাষ্ট্রীয় টেলিভিশন আল আরাবিয়াকে দেয়া সাক্ষাৎকারে কাসিম বলেন, ভ্যালেন্টাইনস ডে একটি সামাজিক ইস্যু, জনগণ এটা উদযাপন করতেই পারে, কেননা এটা কোন হারাম কিছু নয়।

সৌদি আরবে যুবরাজ মুহাম্মদ বিন সালমানের উদ্যোগে চলা সংস্কারের অংশ হিসেবে ‘ধর্মীয় পুলিশের’ ক্ষমতা কমিয়ে ফেলা হয়। এতে করে এখন পুলিশ ধর্মীয় অনাচারের জন্য  নাগরিকদের সরাসরি গ্রেফতার করতে পারবে না।

বুধবার ভালোবাসা দিবসে সৌদি আরবে জেদ্দায় প্রশাসনের কোন বাধা ছাড়াই ফুল বিক্রি হতে দেখা যায়। যা গত বছরেও কেউ কল্পনা করতে পারেনি। বিভিন্ন গিফটের দোকানও খোলা থাকতে দেখা যায়।

আহমেদ আল কাসিম আরব নিউজকে বলেন, ভালোবাসা মানুষের সহজাত অনুভূতি। আর তার উদযাপন অমুসিলমদের মধ্যেই কেন সীমাবদ্ধ থাকবে। ধর্মীয় দিক থেকে ভালোবাসা দিবস পালনের অনুমতি রয়েছে।

এদিকে ১৩ ফেব্রুয়ারি মিশরের আলেম আহমেদ মামদুহ  ফতোয়া দেন যে, নির্দিষ্ট একটি দিনে একে অপরকে ভালোবাসার অনুভূতি প্রকাশে কোন ক্ষতি নেই।

তবে তিউনিশিয়ার গ্রান্ড মুফতি ওসমান বাটিক এই ফতোয়ার বিরোধী। তিনি বলেন, ভ্যালেন্টাইনস ডে খ্রিস্ট ধর্মালম্বীদের ঐতিহ্য। মুসলিমরা ইসলামী নৈতিকতার বিরোধি কোন কিছু উদযাপন করতে পারে না।









Leave a reply