২ হাজার টাকার জন্য বাবাকে পিটিয়ে হত্যা

|

পাবনা প্রতিনিধি:

দরিদ্র পিতা আহেজ প্রামানিক (৭০) অভাবের তাড়নায় ছেলে আব্দুর রহিমের (৪৩) কাছ থেকে ২ হাজার টাকা ধার নিয়ে পরিশোধে ব্যর্থ হওয়ায় ছেলের নির্মম প্রহারে নিহত হয়েছেন।
শনিবার রাতে রাজধানী ঢাকা থেকে ঘাতক ছেলেকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। রাতেই পুলিশের কাছে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয়ায় আদালতের মাধ্যমে তাকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

নিহত আহেজ আতাইকুলা থানার হরিপুর রতনপুন গ্রামের মৃত ইমারত প্রামানিকের ছেলে।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, আহেজ প্রামানিক অভাবের কারণে তার ছেলে আব্দুর রহিমের কাছে থেকে ২ হাজার টাকা ধার নেন। বৃহস্পতিবার (২২ এপ্রিল) রাত ৯ টার দিকে ছেলে রহিম পিতা আহেজ প্রামানিকের নিকট ধারের টাকা ফেরত চান। বাবা টাকা ফেরত দিতে না পারায় দু’জনের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে ছেলে রহিম বাঁশের গোড়ালি দিয়ে পিতার মাথায় সজোরে আঘাত করে। আঘাত পেয়ে বৃদ্ধ আহেজ প্রামানিক সঙ্গে সঙ্গে মাটিতে লুটিয়ে পড়েন। পরে স্বজনরা তাকে উদ্ধার করে পাবনা জেনারেল হাসপাতালে নিলে চিকিৎসক রাজশাহী মেডিকেল কলেজে পাঠান। রাজশাহী নেওয়ার পথে রাত ৩টার দিকে মারা যান আহেজ প্রামানিক।

আতাইকুলা পুলিশ ভোরে বৃদ্ধ আহেজের লাশ উদ্ধার করে। তখন থেকেই ঘাতক ছেলে রহিম পলাতক ছিল। এ ব্যাপারে নিহতের ভাই আঃ আউয়াল বাদি হয়ে আতাইকুলা থানায় পরেরদিন শুক্রবার ২৩ এপ্রিল দুপুরে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

পাবনার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) রোকনুজ্জামান সরকার ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, এসপি স্যারের নির্দেশনায় বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে আতাইকুলা থানার একটি টিম ঢাকা থেকে ঘাতক ছেলেকে গ্রেফতার করেছে।

তিনি আরও বলেন, আসামি নিজে পিতাকে হত্যা করার কথা স্বীকার করে বিজ্ঞ আদালতে ফৌজদারি কার্যবিধির ১৬৪ ধারায় স্বেচ্ছায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি প্রদান করেছে।

পাবনার পুলিশ সুপার মহিবুল ইসলাম খান বলেন, বাবাকে হত্যা করে পুলিশকে ফাঁকি দিতে গ্রেফতার এড়াতে ঢাকায় আত্মগোপনে ছিল। জেলা পুলিশের একটি আভিযানিক দল তাকে আটক করে আদালতে সোপর্দ করেছে। আদালত ঘাতক ছেলেকে কারাগারে পাঠিয়েছে।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply