হিজলের ‘ধুলা পবনের দেশ’

|

একুশে গ্রন্থমেলায় মেঘ প্রকাশনী থেকে প্রকাশিত হচ্ছে হিজল জোবায়েরের দনতু কবিতার বই “ধুলা পবনের দেশ” । বিনিময় মূল্য রাখা হয়েছে ১৬০ টাকা। কবিতাগুলো  বিগত পাঁচ বছরের নানা সময়ে লিখিত।

“ধুলা পবনের দেশ” এই নামকরণের ভরকেন্দ্র এক উষর সময়; অনুর্বর, নিষ্ফলা যা। বাংলা বলতেই যেমন সবুজ, শ্যামল, শস্য আর নদীর নিসর্গসম্বলিত একটা স্বর্গীয় ভু-খণ্ড আমাদের সামনে ভাসে, বাংলা শুধু তাই নয়, সাধারণ দৃষ্টিতে দেখলেও আমরা দেখতে পাবো বাংলাদেশের হোক কিংবা বৃহত্তর বাংলা ভূখণ্ডেরই হোক আছে এক ধুলা ওড়া নিষ্ফলা প্রান্তরের ল্যান্ডস্কেপ। সেই ছবি শুধু ভৌগলিক বস্তুজগতেই বিরাজমান নয়; রাজনৈতিক, সাংস্কৃতিক, অর্থনৈতিক সব ক্ষেত্রেই আমাদের চলমান বাস্তবতার মধ্যে তার আধিপত্য আছে, আছে পুড়ে যাওয়া, খাক হওয়া সময়, যা মারীর মতন ছাড়িয়ে যায় আমাদের পূর্বেকার সবুজ-শ্যামল বাংলার ধারণাকে। ইউটোপিয়ান বাংলা সেখানে উবে যায়। “ধুলা পবনের দেশ” যুগপৎ এই দুইটি বাস্তবতাকেই অ্যাড্রেস করতে চায়। আবার এই বাতাসে উড়তে থাকা ধুলার ঘূর্ণির ভেতরেই আছে এক গেরুয়া, মরমী সৌন্দর্য, যা হয়তো আমাদের উষর লোকালয়ের, উষর সময়ের এই বর্তমানেও কোনো এক উপশমের ইশারা দিতে চায়।

বই প্রকাশের অভিজ্ঞতা কেমন হয় এমন প্রশ্নে কবি হিজল জোবায়ের বলেন, বই প্রকাশ করাটাই যুগপৎ মধুর ও উদ্বেগজনক। ভবিষ্যতের ভাবনা কি জানতে চাইলে কবি বলেন,  ভবিষ্যতে একটি একক দীর্ঘ কবিতার বই করার পরিকল্পনা আছে; কালপর্বের আবহটাও খুব সম্ভব দীর্ঘ হবে। এর বাইরে আরও কিছু বিচ্ছিন্ন পরিকল্পনা আছে বই নিয়ে। সেগুলো গোছাতে সুদূর ভবিষ্যতের দিকে আমি নিজেই তাকিয়ে আছি।









Leave a reply