সনদ জালিয়াতির অভিযোগ: উপজেলা চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে হাইকোর্টের রুল

|

সনদ জালিয়াতির অভিযোগে নড়াইল সদর উপজেলা চেয়ারম্যান নিজাম উদ্দিন খান নীলুকে পদ থেকে বাদ দেওয়া হবে না এই মর্মে রুল জারি করেছে হাইকোর্ট।

মঙ্গলবার হাইকোর্টের এক বেঞ্চ এ রুল জারি করেন। চার সপ্তাহের মধ্যে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে রুলের জবাব দেয়ার নির্দেশ হাইকোর্টের।

নিজাম উদ্দিন খান নীলুর বিরুদ্ধে অভিযোগ, তিনি এইচএসসি পাস অথচ নির্বাচনী হলফনামায় নিজেকে এমএসসি পাস বলে উল্লেখ করেছেন। তার স্নাতক ও স্নাতকোত্তর সার্টিফিকেট জাল মর্মে নির্বাচন কমিশন এবং স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ে তার এলাকার একাধিক ব্যক্তি এবং নির্বাচনি প্রতিদ্বন্দ্বী অভিযোগ করে প্রতিকার চেয়েছেন।

জানা গেছে, ২০১৯ সালে উপজেলা চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন নিজাম উদ্দিন। সেই নির্বাচনের হলফনামায় নিজেকে এমএসসি পাস হিসেবে উল্লেখ করায় অনেকের সন্দেহ হয়। হলফনামায় দেখা যায়, তিনি এমএসসি ডিগ্রিধারী হিসেবে নিজেকে ঘোষণা দিয়েছেন। হলফনামায় তিনি ‘আমেরিকান বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি’ নামে একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ২০১৫ সালের এমএসসি পাস সনদ সংযুক্তি দিয়েছেন। ওই সনদে উল্লেখ করা হয়েছে ‘ফ্যাকাল্টি অব হিউম্যান সায়েন্স’ থেকে তিনি ‘মাস্টার্স অব সোশ্যাল সায়েন্স’-এ এমএসসি ডিগ্রি অর্জন করেছেন।

হলফনামায় ও ভোটার আইডি কার্ডের তালিকায় তার নাম নিজাম উদ্দিন খান নীলু লেখা আছে কিন্তু বিএ পাসের সনদে লেখা আছে নিজামুদ্দিন খান। এসএসসি, বিএ ও এমএসসিতে তার নামের বানান তিন রকম বানান উল্লেখ করা আছে।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply