সোনালী দিনের অভিনেত্রী রোজী আফসারীর প্রয়াণদিন আজ

|

ঢাকাই চলচ্চিত্রের একসময়কার অন্যতম দাপুটে অভিনেত্রী রোজী আফসারী। কখনো নায়িকা, কখনো বড় ভাবী, মা কিংবা বিধবা চরিত্রে প্রাণবন্ত অভিনয়ে মুগ্ধ করেছেন এদেশের সিনেপ্রেমীদের। এমনি নানা চরিত্রে অসাধারণ অভিনয়-শৈলীতে সবার মন জয় করেছিলেন কিংবদন্তি অভিনেত্রী রোজী আফসারী। ২০০৭ সালের ৯ মার্চ আজকের এই দিনে না ফেরার দেশে চলে যান তিনি।

পুরো নাম নাম শামীমা আক্তার রোজী। যাকে সবাই রোজী আফসারী নামে চিনেন। শামীমা আক্তার রোজী ১৯৪৯ সালের ২৩ এপ্রিল লক্ষ্মীপুর জেলা শহরের শমসেরাবাদ এলাকায় জন্মগ্রহণ করেন।

বাংলা চলচ্চিত্রের স্বর্ণালি যুগের সোনালী অভিনেত্রী রোজী ১৯৬২ সালে আব্দুল জব্বার খান পরিচালিত ‘জোয়ার এলো’ সিনেমার মাধ্যমে অভিনয় জীবন শুরু করেন এবং তার অভিনীত সর্বশেষ চলচ্চিত্র ‘পরম প্রিয়’ মুক্তি পায় ২০০৫ সালে। সিনেমার ‘সুবর্ণ যুগ’ খ্যাত সময়ের দাপুটে ও প্রভাবশালী নায়িকা একজন ছিলেন রোজী।

দেশবরেণ্য চিত্রগ্রাহক ও চলচ্চিত্রকার এম এ সামাদ ছিলেন রোজী সামাদের স্বামী। ‘জোয়ার এলো’ সিনেমার পর তিনি জনপ্রিয়তা পান নারায়ণ ঘোষ মিতা পরিচালিত ‘আলোর মিছিল’ সিনেমাতে অভিনয় করে।

প্রায় ৪ দশক ধরে রোজী প্রায় ৩৫০টি চলচ্চিত্রে অভিনয় করেন। এর মধ্যে পাকিস্তানের ‘জাগো হুয়া সাবেরা’, ‘পুনম কি রাত’সহ ২৫টি উর্দু সিনেমাতে অভিনয় করেছেন তিনি।

তার অভিনীত সেরা চলচ্চিত্রগুলোর মধ্যে রয়েছে ‘সূর্য গ্রহণ’, ‘সূর্য সংগ্রাম’, ‘জীবন থেকে নেয়া’, ‘তিতাস একটি নদীর নাম’ ইত্যাদি।

এছাড়া অন্যান্য জনপ্রিয় চলচ্চিত্রের মধ্যে রয়েছে ‘ওরা ১১ জন’, ‘লাঠিয়াল’, ‘এতটুকু আশা’, ‘নীল আকাশের নীচে’, ‘অশিক্ষিত’, ‘প্রতিকার’ প্রভৃতি।

লাঠিয়াল চলচিত্রে স্ত্রীর চরিত্রে অভিনয় করে শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী বিভাগে জাতীয় চলচিত্র পুরুষ্কার অর্জন করেন তিনি। ২০০৭ সালের ৯ মার্চ আজকের এই দিনে না ফেরার দেশে চলে যান তিনি।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply