রকিবুলের সাথে দুর্ব্যবহার: সুজনকে আইনী নোটিশ

|

কিছুদিন আগেই বাংলাদেশ ক্রিকেটের সাবেক ক্রিকেটারদের নিয়ে লিজেন্ডস চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি আয়োজন করা হয়েছিলো কক্সবাজারে। সেই টুর্নামেন্ট চলার সময় জাতীয় ক্রিকেট দলের সাবেক অধিনায়ক ও আইসিসির ম্যাচ রেফারি রকিবুল হাসানকে মারতে তেড়ে গিয়েছিলেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের পরিচালক খালেদ মাহমুদ সুজন। সেই ঘটনাকে কেন্দ্র করে খালেদ মাহমুদ সুজনকে আইনি নোটিশ পাঠানো হয়েছে। রোববার সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী মোহাম্মাদ আবু তালেব এ নোটিশ প্রেরণ করেন।

এই নোটিশ সম্পর্কে রাকিবুল হাসান যমুনা নিউজিল্যান্ড বলেন, দেখেন আমি একজন মুক্তিযোদ্ধা, আমি বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের অধিনায়ক ছিলাম। দেশে বিদেশে আমার অনেক ভক্ত রয়েছে হয়তো তাদের মধ্যে কেউ সুজনকে এই নোটিশ পাঠিয়েছে। তবে নোটিশে কি লেখা রয়েছে সেটা এখনও আমি জানি না ভালোভাবে।

খালেদ মাহমুদ সুজনকে পাঠানো ওই নোটিসে উল্লেখ করা হয়েছে রাকিবুল হাসানের সাথে কক্সবাজারে যে ঘটনা ঘটেছে তার জন্য আগামী ৭ দিনের মধ্যে সংবাদ সম্মেলন করে ক্ষমা চাইতে হবে তাকে।

এই প্রসঙ্গ রাকিবুল হাসান যমুনা নিউজকে বলেন, সুজন কি করবে বা কি করবে না সেটা তার ব্যাপার। সে ইচ্ছা করলে আমাকে আলাদাভাবে ডেকে নিয়ে বলতে পারতেন বা বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করতে পারতো। কিন্তু সবার সামনে আমাকে তেড়ে আসলো মারতে এটা কি উচিত হয়েছে? সেও তো একদিন সিনিয়র হবেন তার কোনো জুনিয়র যদি তার সাথে এমন আচরণ করে তখন সে কি করবে?

নোটিশ প্রদানকারী আইনজীবী গণমাধ্যমকে বলেন, সাবেক অধিনায়ক রকিবুল হাসান একজন মুক্তিযোদ্ধা। তিনি খালেদ মাহমুদ সুজনের থেকেও জ্যেষ্ঠ ক্রিকেট অধিনায়ক। তাকে অপমানের ঘটনা আমার নজরে এসেছে। এ কারণে আমি সংক্ষুব্ধ হয়ে জনস্বার্থে এ নোটিশ পাঠিয়েছি। আগামী ৭ দিনের মধ্যে সংবাদ সম্মেলন করে ক্ষমা চাইতে বিসিবির পরিচালক খালেদ মাহমুদ সুজনের প্রতি অনুরোধ জানানো হয়েছে এই নোটিশে। সুজন ক্ষমা না চাইলে এ ঘটনায় আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এ বিষয়ে তাৎক্ষণিক খালেদ মাহমুদ সুজনের কোন প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি। তিনি এখন রোড সেফটি ওয়ার্ল্ড সিরিজ টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্টের খেলতে ভারতে অবস্থান করছেন।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply