আট বছরেও হয়নি নারায়ণগঞ্জের ত্বকী হত্যার বিচার

|

ফাইল ছবি।

নারায়ণগঞ্জের মেধাবী শিক্ষার্থী তানভীর মোহাম্মদ ত্বকী হত্যার আট বছর পেরিয়ে গেলেও মামলার তদন্ত প্রতিবেদন আদালতে জমা দিতে পারেনি র‌্যাব।

দীর্ঘ দিনেও অভিযোগপত্র না দেয়ায় ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন মামলার বাদি। তার দাবি আসামিরা সরকারি দলের লোক হওয়ায় উপর মহলের চাপে কারণে র‌্যাব তদন্ত প্রতিবেদন চূড়ান্ত করার পরও আদালতে জামা দিচ্ছেন না।

২০১৩ সালের ৬ মার্চ বিকেলে নগরীর কালির বাজার বাসা থেকে সূধীজন পাঠাগারের আসার পথে ত্বকীকে তুলে নিয়ে যায় দুর্বৃত্তরা। দুইদিন পর নগরীর শীতলক্ষ্যা নদীর শাখা খাল কুমুদিনী খালে ত্বকীর নিথরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় নিহত ত্বকীর বাবা সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব রফিউর রাব্বি বাদি হয়ে শামীম ওসমানের ভাতিজা আজমেরী ওসমানসহ বেশ কয়েকজনের নাম উল্লেখ করে নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানায় মামলা দায়ের করেন।

পরবর্তীতে মামলার বাদির আবেদনের প্রেক্ষিতে আদালতের নির্দেশে মামলাটি তদন্ত করার দায়িত্ব পায় র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন টিম (র‌্যাব)। র‌্যাব এই মামলার আসামি শওকত সুলতান ভ্রমর, লিটনসহ বেশ কয়েকজনকে গ্রেফতার করে। তাদের মধ্যে শওকত সুলতান ভ্রমর, লিটন আদালতে হত্যাকাণ্ডের কথা স্বীকার করে আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি প্রদান করে।

পরবর্তীতে আসামিরা একে একে জামিনে বের হয়ে এসে পালিয়ে যায়।

এ ব্যাপারে মামলার বাদি অভিযোগ করেন, মামলার তদন্তকারী সংস্থা র‌্যাব ২০১৪ সালের শেষের দিকে এসে মামলার তদন্ত প্রতিবেদন প্রস্তুত করেছে অভিযোগপত্র আদালতে দাখিল করবে বলে গণমাধ্যমকে জানিয়েছিল। তারা বলেছিল অচিরেই তদন্ত প্রতিবেদন আদালতে উপস্থপন করা হবে। কিন্তু এই কথা বলার পর প্রায় আট বছর পেরিয়ে গেলে কেন র‌্যাব আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করছে না তা আমার বোধগম্য নয়।

তিনি বলেন, সংবিধানে স্পষ্ট উল্লেখ আছে ৬০ দিন থেকে ৭৫ দিনের মধ্যে অবশ্যই তদন্ত প্রতিবেদন আদালতে উপস্থাপন করতে হবে। তিনি বলেন, কারা কবে কীভাবে ত্বকীকে হত্যা করেছে, কোথায় নিয়ে নির্যাতনের পর হত্যা করা হয়েছে সবই র‌্যাব কাছে স্বীকার করেছে আসামিরা। কিন্তু তার পরও অভিযোগপত্র দেয়া কেন হচ্ছে না? শুধুমাত্র আসামিরা সরকারি দলের লোক হওয়ার কারণে?





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply