আদালতে লড়াই করে স্বেচ্ছা মৃত্যুর অধিকার জিতলেন পেরুর এক অসুস্থ নারী

|

আদালতে লড়াই করে স্বেচ্ছা মৃত্যুর অধিকার জিতলেন পেরুর এক অসুস্থ নারী

আদালতে লড়াই করে স্বেচ্ছা মৃত্যুর অধিকার জিতলেন পেরুর এক অসুস্থ নারী। ক্যাথলিক খ্রিস্টান অধ্যুষিত দেশটিতে স্বেচ্ছায় জীবনের অবসান ঘটানো অবৈধ।

তবে ৪৪ বছর বয়সী আনা এসত্রাদাকে চিকিৎসকদের সহায়তায় মৃত্যু বেছে নেয়ার অধিকার দিয়েছে আদালত। পেশায় মনোবিজ্ঞানী এ নারী প্রায় ৩ দশক ধরে পলিমিওসাইটিস নামে এক বিরল রোগে ভুগছেন। এ রোগ ধীরে ধীরে মানুষের মাসল অকেজো করে দেয়, এর কোনো চিকিৎসাও আবিষ্কৃত হয়নি। বর্তমানে হাসপাতালে কৃত্রিম যন্ত্রের মাধ্যমে শ্বাস-প্রশ্বাস নিতে হয় এসত্রাদাকে।

প্রায় ৫ বছর আগে স্বেচ্ছা মৃত্যুর অধিকার আদায়ে আইনি লড়াই শুরু করেন তিনি। মঙ্গলবার রায় হয়, এসত্রাদা যখন চাইবেন তার জীবনের অবসান ঘটানোর লক্ষ্যে ইউথানেসিয়া প্রয়োগ করতে হবে।

স্বেচ্ছা মৃত্যুর অধিকার পাওয়া নারী আনা এসত্রাদা জানান, আমার শরীরে আর কোনো শক্তি অবশিষ্ট নেই। সামান্য কথা বলতেও কষ্ট হয়। তবে আমার আত্মা এই ভেবে তৃপ্তি পাচ্ছে যে নিজের জীবনের বিষয়ে সিদ্ধান্ত আমি নিজেই নিতে পারবো।









Leave a reply