নাসির পত্নীর পাসপোর্ট ঘিরে নতুন প্রশ্ন

|

ক্রিকেটার ও বিমান বালার প্রেম কাহিনী এখন সবারই জানা তবে মাঝখানে ১১ বছর সংসার করা স্বামী তাদের বিয়েতে বাঁধা হয়ে দাঁড়িয়েছিলেন। টানা কয়েকদিন গণমাধ্যম ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আলোচনা-সমালোচানার ইতি টেনেছেন সংবাদ সম্মেলনে।

তবে নাসিরের স্ত্রী তামিমার বক্তব্য অনুযায়ী ২০১৬ সালে তাদের ডিভোর্স হয়েছে তার পেপার্সও গণমাধ্যমে তিনি উপস্থাপন করেছেন। তবে প্রশ্ন জেগেছে নতুন করে, তার পাসপোর্টের কপি নিয়ে। যেখানে স্পস্ট দেখা যায় ২০১৮ সালে তিনি নতুন পার্সপোর্ট হাতে পেয়েছেন, যার মেয়াদ ২০২৩ সাল পর্যন্ত। সেখানে স্বামীর জায়গায় পরিষ্কার করে লেকা আছে সাবেক স্বামী রাকিব হাসানের নাম। তবে তামিমা, নাসির ও রাকিবের জীবনে নতুন মোড় নিচ্ছে? বুধবার সন্ধ্যার পর থেকেই এই পার্সপোর্টের কপি নিয়ে আবাও শুরু হয়েছে আলোচনা সমলোচনা।

সেই সাথে তালাক নামায় তারিখের জায়গায়ও রয়েছে কাঁটাছেড়া। এমন অবস্থায় নতুন করে ভাবাচ্ছে বিষয় দুটি।

এর আগে, (২৪ ফেব্রুয়ারি) ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ জসিমের আদালতে তিনি এ মামলা দায়ের করেন। মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয়েছে, ২০১১ সালের ২৬ ফেব্রুয়ারি তামিমা ও রাকিবের ৩ লাখ ১ টাকা দেনমোহরে বিয়ে ও রেজিস্ট্রি হয়। তাদের ৮ বছরের একটি মেয়েও রয়েছে (নাম প্রকাশ করা হলো না)। তামিমা পেশায় একজন কেবিন ক্রু। তিনি বর্তমানে সৌদি এয়ারলাইন্সে কর্মরত রয়েছেন। চাকরির সুবাদে তিনি বিগত ১০ মার্চ, ২০২০ তারিখে সৌদি আরব যান। করোনা মহামারির কারণে জরুরি অবস্থার সৃষ্টি হলে তিনি সেখানে আটকা পড়েন। এ সময়ে ফোন ও সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে বাদীর সাথে তার যোগাযোগ হতো।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply