মিয়ানমারের অভ্যুত্থানের নেতাদের বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞা

|

অবশেষে অভ্যুত্থান বিরোধী বিক্ষোভে উত্তাল মিয়ানমারে নিষেধাজ্ঞা জারি করতে যাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র। বুধবার এ ঘোষণা দেন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন।

বলেন, মিয়ানমারে উদ্বুদ্ধ পরিস্থিতির প্রেক্ষাপটে সই করা হলো নতুন নির্বাহী আদেশ। যা বহাল হবে দেশটির শীর্ষ সেনা কর্মকর্তা, তাদের পরিবারের সদস্য এবং সামরিক সরকার পরিচালিত ব্যবসার ওপর।

এরফলে, দেশটির জন্য বরাদ্দকৃত মার্কিন তহবিল বঞ্চিত হবেন তারা। একইসাথে রফতানির ওপর জারি হবে বিধিনিষেধ। স্বাস্থ্যসেবা-এনজিওগুলোর জন্য বরাদ্দকৃত তহবিলও জব্দ করবে ওয়াশিংটন। এই অর্থনৈতিক চাপে গণতন্ত্র পুনঃপ্রতিষ্ঠায় বাধ্য হবে জান্তা- এমনটাই প্রত্যাশা বাইডেনের।

দেশটিতে চলমান অভ্যুত্থান বিরোধী আন্দোলন দমনে মঙ্গলবার থেকে কঠোর হয় সেনাবাহিনী। প্রতিবাদ-সমাবেশে প্রয়োগ হয় পেশিশক্তির, আহত হন অনেকে। এ ঘটনায় উদ্বিগ্ন বিশ্ব সম্প্রদায়।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন বলে, নতুন নির্বাহীর আদেশ বলে মিয়ানমারের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করতে যাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র। যার আওতায় অভ্যুত্থানের সাথে জড়িত সামরিক কর্মকর্তা, তাদের পরিবারের সদস্য এবং সেনা পরিচালিত ব্যবসার ওপর জারি হবে নিষেধাজ্ঞা। মিয়ানমারের জন্য বরাদ্দকৃত ১০ কোটি ডলারের মার্কিন সহায়তা থেকে তারা বঞ্চিত হবেন। দেশটির পণ্য আমদানির ওপরও বহাল হচ্ছে কঠোর বিধিনিষেধ। চলতি সপ্তাহেই প্রকাশিত হবে তালিকা।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply