শিশু ধর্ষণের পর হত্যা মামলার ৬ বছর পর ১ জনের ফাঁসি

|

ধর্ষণ ও হত্যা মামলার ৬ বছর পর ১ জনের ফাঁসি ও অপরজনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের রায় দিয়েছেন নীলফামারীর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আদালত-২ এর বিচারক।

মামলার সংক্ষিপ্ত বিবরণে জানা গেছে, ডিমলা উপজেলার সাতজান গ্রামের আব্দুল গণীর ১৩ বছরের শিশু কন্যাকে ২০১৩ সালের ২৯ আগষ্ট রাতে একই গ্রামের মকবুল হোসেন ও হালিমুর রহমান জোর করে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণের পর হত্যা করে লাশ পুতে রাখে।

এ ঘটনায় তার বাবা আব্দুল গণী বাদি হয়ে ৬ জনকে আসামি করে স্থানীয় থানায় ধর্ষণ ও হত্যা মামলা দায়ের করেন। সাক্ষ্য প্রমাণ শেষে আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে বিচারক মাহবুবার রহমান জনাকীর্ণ আদালতে আসামি মকবুল হোসেনকে ফাঁসি ও হালিমুর রহমানকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের আদেশ দেন।

নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আদালত-২’র বিচারক অ্যাড. আল মাসুদ আলাল (পিপি) জানান, সাক্ষ্য প্রমাণ প্রমাণিত না হওয়ায় অপর ৪ জনকে বেকসুর খালাস দিয়েছেন আদালত।









Leave a reply