আশুগঞ্জ সার কারখানার কর্মচারীর লাশ উদ্ধার

|

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি:

শুক্রবার রাতে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জ সার কারখানা আবাসিক কলোনির ব্যাচেলর বাসা
থেকে মো. বোরহান উদ্দিন বাহারের (৩৫) লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

সে চাঁদপুর জেলার কচুয়া এলাকার মৃত মো. মুসলিম মিয়ার ছেলে। তবে নিহতের মুখসহ শরীর ফুলে যাওয়ার কারণে তাৎক্ষণিকভাবে পরিচয় শনাক্ত করা যায়নি। নিহত রোবহান উদ্দিন বাহার আশুগঞ্জ সার কারখানার প্রশাসন/এস্টেট শাখার এল.এম.এস.এস ছিলেন।

নিহতের প্রতিবেশী মো. রেজাউল করিম ও পুলিশ জানায়, বুধবার বন্ধুর সাথে দুপুরের খাবার খান বোরহান উদ্দিন। রাতেও বোরহানের বাসায় কথাবার্তার আওয়াজ শোনা যায়। এরপর থেকে বোরহানের রুমের বাহির থেকে তালা লাগানো ছিল।

এদিকে বোরহানের স্ত্রী চাঁদপুর থেকে মোবাইলে যোগাযোগ করতে ব্যর্থ হয়ে সহকর্মীদের অবগত করেন। পরে কলোনির বাসার জানালা দিয়ে খাটের ওপর মরদেহ পড়ে থাকতে দেখে পুলিশকে খবর দেয়। পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে দরজা ভেঙ্গে ভিতরে ঢুকে রক্তাক্ত ও ফুলে যাওয়া মরদেহ দেখতে পান। নিহতের মুখসহ শরীর ফুলে যাওয়ার কারণে পরিচয় নিশ্চিত করতে পারেনি তারা। খবর পেয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ ও প্রশাসন) মো. রইছ উদ্দিন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

পুলিশ জানায়, মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য জেলা সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। প্রাথমিকভাবে এটিকে একটি হত্যাকাণ্ড বলে মনে হচ্ছে। নিহতের মুখসহ শরীর ফুলে যাওয়ায় পরিচয় শনাক্তের জন্য প্রযুক্তির সহায়তা নেয়া হয়েছে।

ইউএইচ/









Leave a reply