রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে জাতীয় পতাকা বিকৃতির অভিযোগে মাববন্ধন ও বিক্ষোভ

|

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, রংপুর:

বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে কয়েকজন শিক্ষক কর্তৃক জাতীয় পতাকা বিকৃত করার অভিযোগে বৃহস্পতিবার প্রতিবাদে উত্তাল হয়ে ‍উঠেছে ক্যাম্পাস ও আশেপাশের এলাকা। এ ব্যাপারে একটি জিডি ও একটি অভিযোগ দায়ের হয়েছে থানায়।

জাতীয় পতাকা অবমাননার প্রতিবাদে সন্ধ্যায় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকে মানববন্ধন করে মহানগর যুবলীগ। পরে তারা পার্কের মোড় এলাকায় প্রতিবাদ বিক্ষোভ করে। এ সময় সেখানে বক্তব্য রাখেন মহানগর যুবলীগ সভাপতি সিরাজমু মনির বাশার, সাধারণ সম্পাদক মুরাদ হোসেন। এ সময় তারা অভিযুক্ত শিক্ষকদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেয়ার দাবি জানান। এর আগে বিশ্ববিদ্যালয় পরিবারের উদ্যোগে পার্কের মোড়ে মানববন্ধন করে শিক্ষক কর্মকর্তা, কর্মচারী ও শিক্ষার্থীরা।

এদিকে, এ ঘটনায় রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক সিনিয়র সহ-সভাপতি আরিফুল ইসলাম আরিফসহ বাদি ৭ জন শিক্ষক ও ভিসির পিএসহ ১০ জনের নাম উল্লেখ করে তাজহাট থানায় একটি অভিযোগ করেন। অভিযোগে বলা হয়, ১৬ ডিসেম্বর বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের বিভাগীয় প্রধান প্রফেসর পরিমল চন্দ্র বর্মণ, সহকারী প্রক্টর মাহমুদুল হাসান, সমাজ বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষক রাম প্রসাদ বর্মণ এবং ভিসির পিএ আমিনুল ইসলামের নেতৃত্বে জাতীয় পতাকার গোলবৃত্তটি চতুর্ভুজ আকারে করে শহীদ মিনারে ফটোসেশন করে তা ফেসবুকে পোস্ট করা হয়েছে। জাতীয় পতাকার বিকৃতি রাষ্ট্রীয় অবমাননার শামিল।

অন্যদিকে, এ ঘটনায় ফটোসেশনে থাকা শিক্ষক সমিতির সাবেক সাধারণ সম্পাদক তাবিউর রহমান প্রধান জানিয়েছেন, ঘটনার সময় একটি পতাকা নিয়ে এসেছিলেন এক ব্যক্তি। আমরা সেখানে উপস্থিত কয়েকজন শিক্ষক ভালোভাবে পতাকাটি না দেখেই তা নিয়ে শহীদ মিনারে দাঁড়িয়ে যাই। ছবি তুলে পোস্ট করি। পরবর্তীতে বিষয়টি দেখা মাত্রই ফেসবুক থেকে ছবিটি রিমুভ করি এবং ভুল স্বীকার করে ক্ষমা চেয়ে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেই। আমরা মনে করি আমাদের অসাবধানতাবশত এই কাজটিও সঠিক হয়নি। এ ঘটনা আমরা তাজহাট থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করে রেখেছি। বিষয়টি নিয়ে পানি ঘোলা না করারও অনুরোধ জানান তিনি।

ইউএইচ/





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply