শিশু সামিউল হত্যার রায় পেছালো

|

সামিউল আজিম ওয়াফি।

রাজধানীর মোহাম্মদপুরের শিশু সামিউল আজিম ওয়াফি হত্যা মামলার রায় পিছিয়ে ২০ ডিসেম্বর দিন ধার্য করেছেন আদালত। মঙ্গলবার ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৪ এর বিচারক শেখ নাজমুল আলমের এ রায় ঘোষণা করার কথা ছিলো। কিন্তু মামলাটির রায় প্রস্তুত না হওয়ায় বিচারক পরবর্তী এই দিন ধার্য করেন।

এর আগে গত ২৩ নভেম্বর যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শেষে রায় ঘোষণার জন্য এ তারিখ নির্ধারণ করেন আদালত। ২০১২ সালে মা আয়েশা হুমায়রা এশা ও তার প্রেমিক শামসুজ্জামান আরিফ ওরফে বাক্কুর বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা। এ মামলায় ২২ জনের সাক্ষ্য গ্রহণ করা হয়।

এশা জামিনে ছিলেন তবে গত ২৩ নভেম্বর আদালতে হাজির না হওয়ায় বিচারক জামিন বাতিল করে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন। অপর আসামি বাক্কু পলাতক।

মামলার এজাহার থেকে জানা যায়, মায়ের অনৈতিক কর্মকাণ্ড দেখে ফেলায় ২০১০ সালের ২৩ জুন সামিউলকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়। এশা ও বাক্কু হত্যাকাণ্ডে জড়িত থাকার বিষয়ে আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয়।

সামিউল নবোদয় হাউজিংয়ের গ্রিনউড ইন্টারন্যাশনাল স্কুলের ইংরেজি মাধ্যমে প্লে গ্রুপে পড়ত। ২৪ জুন সামিউলের লাশ আদাবরের নবোদয় হাউজিং এলাকা থেকে বস্তাবন্দী অবস্থায় উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় নিহত শিশুর বাবা কে এ আজম বাদি হয়ে ওই দিনই আদাবর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।









Leave a reply