বিদ্যুৎপৃষ্ট হয়ে কৃষকের মৃত্যু, বাঁচাতে গিয়ে আহত দুই নাতনি

|

গাইবান্ধা প্রতিনিধি:

গাইবান্ধার পলাশবাড়ীতে ঘাস কাটতে গিয়ে বিদ্যুতের পড়ে থাকা তারে জড়িয়ে আজল হক (৫০) নামে এক কৃষকের মৃত্যু হয়েছে। এসময় আজল হককে বাঁচাতে গিয়ে আহত হয়েছে তার নাতনি শিরিনা (১২) ও লুৎফা (১০)।

শনিবার বিকেলে পলাশবাড়ী উপজেলার মনোহরপুর ইউনিয়নের নিমদাসের ভিটা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। নিহত আজল হক নিমদাসের ভিটা গ্রামের মৃত্যু ইলাহী হকের ছেলে। আহত শিরিনা ও লুৎফাকে নিজ বাড়িতে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, বিকেলে আজল হক বাড়ীর পাশে ঘাস কাটতে যাচ্ছিলেন। এসময় বাঁশের খুটির বিদ্যুতের তার জমিতে পড়ে ছিলো। আজল হক পায়ে হেটে যাওয়ার সময় পড়ে থাকা তারে জড়িয়ে পড়েন। এতে ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় আজল হকের। এসময় তাকে বাঁচাতে গিয়ে আহত হয় নাতনি শিরিনা ও লুৎফা।

বিষয়টি নিশ্চিত করেন পলাশবাড়ীর হরিণাবাড়ী পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের কর্মকর্তা (পরিদর্শক) মো. রাকিব হোসেন। তিনি জানান, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়। নিহতের লাশ উদ্ধার করে স্বজনদের হস্তান্তর করা হয়। আহতদের বাড়িতে স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। এ ঘটনায় থানায় একটি অপমৃত্যুর মামলা হয়েছে।

এদিকে স্বজন ও স্থানীয়দের অভিযোগ, বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের (পিডিবি) আওতায় নিমদাসের ভিটায় বাঁশের খুঁটিতে তার ঝুঁলিয়ে বিভিন্ন বাড়িতে বিদ্যুৎ সংযোগ দেয় কর্তৃপক্ষ। দীর্ঘদিন ধরে এ অবস্থা চলে আসলেও স্থায়ী কোন খুঁটি বসানো হয়নি। টানা বৃষ্টি ও বাতাসে বাঁশের খুঁটির বিদ্যুৎ তার ছিড়ে মাটিতে পড়ে থাকে। কিন্তু দুইদিনেও সেই তার সরানোর উদ্যোগ নেয়নি বিদ্যুৎ কর্তৃপক্ষ।

বিদ্যুৎ বিভাগের অবহেলার কারণে এই হতাহতের ঘটনা ঘটে। তবে এ বিষয়ে চেষ্টা করেও বক্তব্য জানা যায়নি বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের (পিডিবি) পলাশবাড়ী জোনের দায়িত্বরত কর্মকর্তাদের।









Leave a reply