ভারতে ধর্মগুরু ধর্ষক সাব্যস্ত: ভক্তদের তাণ্ডবে নিহত ৩১

|

ভারতের হরিয়ানা রাজ্যে বিতর্কিত ধর্মগুরুর ভক্তদের তাণ্ডবে ৩১ জন নিহত হয়েছে। ধর্ষণ মামলায় ধর্মগুরু গুরমিত রাম রহিম সিংকে আদালত দোষী সাব্যস্ত করায় ক্ষোভে ফুঁসে উঠেছে তার লাখো ভক্ত।

আজ শুক্রবার ভারতের বিশেষ সিবিআই কোর্ট এই রায় দেয়। শাস্তি ঘোষণা  করা হবে আগামী সোমবার। রায় ঘোষণার পরপরই হরিয়ানার পাঁচকুলা শহরে তাণ্ডব শুরু করে গুরমিত সিংয়ের সংগঠন ডেরা সাচ্চা সউদার সদস্যরা। বেশ কিছু ভবন ও গাড়িতে তারা আগুন ধরিয়ে দেয়। পুড়িয়ে দেয়া হয় গণমাধ্যমের গাড়ি। পুলিশ তাদের নিরস্ত করতে ফাঁকা গুলি ছোড়ার পাশাপাশি টিয়ার গ্যাস ও জলকামান ব্যাবহার করে। কিন্তু সংখ্যায় অনেক বেশি থাকায় পরিস্থিতি পুলিশের নাগালের বাইরে চলে যায়। এখন পর্যন্ত শহরটিতে ৩১ জন নিহত হবার খবর দিয়েছে এনডিটিভি। আহতের সংখ্যা আড়াইশোর বেশি।

পাঁচকুলার সহিংসতা সময়ের সাথে সাথে ছড়িয়ে পড়ে আশেপাশে অনেক শহরে। পাঞ্জাবের মালৌত ও বাল্লুয়ানায় দুটি রেল স্টেশন জ্বালিয়ে দিয়েছে বিতর্কিত গুরুর উন্মত্ত সমর্থকেরা। এসব অঞ্চলের অন্তত ২০০টি ট্রেন বাতিল করা হয়েছে।   সহিংসতার আঁচ এসে লাগে রাজধানীতেও। সেখানে একটি বাস ও ট্রেনের দুটি কোচে আগুন ধরিয়ে দেয়া হয়। পরিস্থিতির অবনতির আশংকায় রাজধানী নয়াদিল্লিতে হাই এলার্ট জারি করা হয়েছে।

রায় ঘোষণা কেন্দ্র করে দাঙ্গার আশঙ্কায় আগে থেকেই মোতায়েন করা হয় সেনাবাহিনী। পরিস্থিতি সামাল দিতে পাঞ্জাব ও হরিয়ানায় প্রস্তুত রাখা হয়েছিলো ১৫ হাজারের বেশি আধাসামরিক বাহিনীর সদস্য। গতরাত ১০টা থেকেই সিরসা শহরে ১৪৪ ধারা জারি করা হয়। এমনকি হরিয়ানায় মোবাইলে ইন্টারনেট সেবাও গতরাত থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ। তারপরও সহিংসতা ঠেকানো যায়নি।

রায় ঘোষণার পর পরিস্থিতির অবনতি হলে সামরিক বাহিনীর হেলিকপ্টারে করে আসামী গুরমিত সিংকে পাঁচকুলা থেকে সরিয়ে রোহতাক শহরে নেয়া হয়। পাঞ্জাব ও হরিয়ানার আদালত জানিয়েছে, সহিংসতায় যে ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে, তার জন্য গুরমিত রাম রহিম সিংয়ের অনেক সম্পত্তি জব্দ করা হবে। আর পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে গাফিলতির প্রমাণ মিললে পুলিশের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ধর্মীয় সংগঠন ডেরা সাচ্চা সৌদার প্রধান গুরমিত সিংয়ের বিরুদ্ধে ২০০২ সালে নিজ আশ্রমে দুই নারীকে ধর্ষণের অভিযোগে মামলা করা হয়। এদিকে, সিডনি মর্নিং হেরাল্ডে প্রকাশিত এক রিপোর্ট থেকে জানা যায়,  ২০০০ সালে ঈশ্বরের কাছাকাছি পৌঁছনো যাবে এই যুক্তি দেখিয়ে ৪০০ জন পুরুষকে শুক্রাশয় কেটে ফেলতে উদ্বুদ্ধ করেন রাম রহিম সিং। এছাড়াও ২০০২ সালে এক অনুসন্ধানী সাংবাদিক হত্যাকাণ্ডে যুক্ত থাকার অভিযোগও রয়েছে তার বিরুদ্ধে।

প্রায় ৪০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার সম্পত্তির মালিক গুরমিত রাম রহিম সিংয়ের ভক্তের সংখ্যা ৫ কোটিরও বেশি।









Leave a reply