মন্ত্রীর বিরুদ্ধে বিক্ষোভ ‘কোরআন বিরোধী’: সিপিআইএম

|

সোনা পাচারকাণ্ডে জরিয়েছে ভারতের কেরালা রাজ্যের উচ্চশিক্ষা মন্ত্রী কে টি জলিলের নাম। আর তার পদত্যাগ দাবি করে তার বিরুদ্ধে বিক্ষোভ করছে কংগ্রেস-ইন্ডিয়ান ইউনিয়ান মুসলিম লীগ। এ আন্দোলনকে কোরআন বিরোধী বলে মন্তব্য করে বসলেন দলীয় মুখপাত্রের সাপ্তাহিক কলামে খোদ সিপিআইএমের কেরালার রাজ্যসম্পাদক কোডিয়ারি বালাকৃষ্ণন। খবর দি ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস বাংলা’র।

সোনা পাচারকাণ্ডের অন্যতম মূল অভিযুক্ত স্বপ্না সুরেশের কল রেকর্ড থেকে জানা যায়, তাকে একাধিকবার ফোন করেছিলেন কেরালার উচ্চশিক্ষা মন্ত্রী।

তবে রাজ্যের এই মন্ত্রী দাবি করেন, রামাদান উপলক্ষে আরব আমিরাতে তরফ থেকে উপহারের বিষয়ে কথা বলতেই ফোন করা হয়েছিল তৎকালীন দূতাবাস কর্মী স্বপ্নাকে।

এই বিবৃতির পর আরেকদফা বিপদে পড়লেন এই মন্ত্রী। তার বিরুদ্ধে ‘ফরেন কন্ট্রিবিউশন রেগুলেশন অ্যাক্ট’-এর লঙ্ঘনের অভিযোগ আনা হয়। বিরোধীদের দাবি- পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অনুমতি ছাড়া কোন উপহার গ্রহণ করা বেআইনি।

বিরোধীদের এই আন্দোলনকে কোরআন বিরোধী আখ্যা দিয়ে সিপিআইএমের রাজ্যসম্পাদক কোডিয়ারি বালাকৃষ্ণন বলেন, ‘আরএসএসের কোরান বিরোধী আন্দোলনে ঘৃতাহুতি করছে ইন্ডিয়ান ইউনিয়ন মুসলিম লীগ। আর এই আন্দোলনে সঙ্গ দিচ্ছে কংগ্রেস। আমি মনে করি মন্ত্রীর বিরুদ্ধে এই আন্দোলন ‘কোরআন বিরোধী’। কারণ কোনও ধর্মীয় পাঠ্যকে উপহাসের বিষয় করা উচিত নয়।

তবে রাজ্য সরকার ও মন্ত্রীর দুর্নীতি ঢাকতে পুরো বিষয়টিতে সাম্প্রদায়িক রং দেওয়ার চেষ্টা করছে বলে দাবি কংগ্রেস ও ইন্ডিয়ান ইউনিয়ন মুসলিম লীগের।

অন্যদিকে বিজেপি রাজ্য সভাপতি কে সুরেন্দ্রণ বলেন, সাম্প্রদায়িকতার কার্ড খেলে সিপিএম পাচারকাণ্ড থেকে নজর ঘোরাতে চাইছে।









Leave a reply