তারাশঙ্কর বন্দ্যোপাধ্যায়ের মৃত্যুবার্ষিকী আজ

|

তারাশঙ্কর বন্দ্যোপাধ্যায়ের মৃত্যুবার্ষিকী আজ

তারাশঙ্কর বন্দ্যোপাধ্যায় বিংশ শতাব্দীর একজন বিশিষ্ট বাঙালি সাহিত্যিক ছিলেন। বাংলা ভাষার অন্যতম শ্রেষ্ঠ কথাসাহিত্যিক, ঔপন্যাসিক ও গল্পলেখক। ১৮৯৮ খ্রিস্টাব্দের জুলাই ২৪ পশ্চিমবঙ্গের বীরভূম জেলার লাভপুর গ্রামে জমিদার পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তার বাবা-মায়ের নাম হরিদাস বন্দ্যোপাধ্যায় ও প্রভাবতী দেবী। ১৯৭১ সালের ১৪ সেপ্টেম্বর মৃত্যুবরণ করেন তিনি।

তার সামগ্রিক সাহিত্যকর্মের মধ্যে রয়েছে ৬৫টি উপন্যাস, ৫৩টি গল্পগ্রন্থ, ১২টি নাটক, ৪টি প্রবন্ধের বই, ৪টি আত্মজীবনী এবং ২টি ভ্রমণ কাহিনী। এই বিশিষ্ট সাহিত্যিক রবীন্দ্র পুরস্কার, সাহিত্য অকাদেমি পুরস্কার, জ্ঞানপীঠ পুরস্কার এবং পদ্মভূষণ পুরস্কারে পুরস্কৃত হন।

তারাশঙ্করের রচনার আর একটি বিশেষ বৈশিষ্ট্য- তিনি পরম যত্নের সঙ্গে মানুষের মহত্ত্বকে তুলে ধরেছেন। শরৎচন্দ্রের পরে কথাসাহিত্যে যারা সবচেয়ে বেশি জনপ্রিয়তা পেয়েছেন, তারাশঙ্কর ছিলেন তাদের একজন। বিশেষ করে তার রচিত ছোট গল্পগুলো একেকটি হীরকখন্ডতুল। তিনি বাংলা ছোটগল্পের অন্যতম প্রধান কারিগর ও নির্মাতা।

তারাশঙ্কর বন্দোপাধ্যায়ের দুই পুরুষ, কালিন্দী, আরোগ্য নিকেতন, জলসাঘর, অভিযান ও বেদেনি অবলম্বনে চলচ্চিত্রও নির্মিত হয়েছে। এর মধ্যে জলসাঘর ও অভিযান ছবিটি পরিচালনা করেছেন চলচিত্রকার সত্যজিৎ রায়।

তারাশঙ্কর বন্দোপাধ্যায় তার কাজের স্বীকৃতি স্বরূপ বেশ কিছু পুরস্কারে ভূষিত হয়েছেন। এর মধ্যে রয়েছে শরৎস্মৃতি পুরস্কার, জগত্তারিণী স্বর্ণপদক, আরোগ্য নিকেতনের জন্য রবীন্দ্র পুরস্কার, একই উপন্যাসের জন্য সাহিত্য একাডেমী পুরস্কার, জ্ঞানপীঠ পুরস্কার এবং ভারত সরকার কর্তৃক পদ্মশ্রী ও পদ্মভূষণ উপাধি লাভ করেন।









Leave a reply