সিঙ্গাপুরের আইপি অ্যাড্রেস ব্যবহার করে পূরণ করা হয়েছিল সানি লিওনির নামে ফর্ম

|

প্রাথমিক লক্ষ্য ছিলো সানি লিওনির নামে ফর্ম তোলার সময় যে আইপি অ্যাড্রেস থেকে ফর্ম পূরণ হয়েছে সেটি খুঁজে বের করা। কিন্তু আইপি অ্যাড্রেস বেরোতে পরিস্থিতি আরও জটিল হয়ে গেলো। কারণ আইপি অ্যাড্রেসটি সিঙ্গাপুরের। খবর হিন্দুস্থান টাইমস’র।

খবরে বলা হয়, সম্ভবত ভিপিএন ব্যবহার করে আশুতোষ কলেজে সানি লিওনির নামে ফর্ম ফিল আপ করেছিল কেউ বা কারা। প্রাথমিক তদন্তের পর এমনটাই মনে করছেন ভারতের লালবাজারের সাইবার শাখার গোয়েন্দারা। কারণ যে আইপি অ্যাড্রেস ব্যবহার করে ফর্ম পূরণ করা হয়েছে তা সিঙ্গাপুরের। গোয়েন্দাদের অনুমান, নিজের পরিচয় গোপন রাখতে ভিপিএন ব্যবহার করেছেন অজ্ঞাতপরিচয় ওই ব্যক্তি। যার ফলে কে এই কাণ্ড ঘটিয়েছেন তা প্রকাশ্যে আনা আরও জটিল হয়ে গেলো তদন্তকারীদের কাছে।

কিছু দিন আগে প্রকাশিত হয় ভারতের আশুতোষ কলেজের প্রথম বর্ষের মেধাতালিকা। তাতে দেখা যায়, ইংরাজি অনার্সের তালিকায় সবার উপরে রয়েছে সানি লিওনির নাম। এ নিয়ে রীতিমতো শোরগোল পড়ে যায়। এরপর একের পর এক কলেজের মেধাতালিকায় বিখ্যাত ব্যক্তিত্বদের নাম ফুটে ওঠে।

ঘটনার পর ভারতের লালবাজারে অভিযোগ জানায় আশুতোষ কলেজ কর্তৃপক্ষ। তারপর তদন্তে নামেন সাইবার গোয়েন্দারা। প্রাথমিক লক্ষ্য ছিলো, যে আইপি অ্যাড্রেস থেকে ফর্ম পূরণ হয়েছে সেটি খুঁজে বের করা। কিন্তু আইপি অ্যাড্রেস বেরোতে পরিস্থিতি আরও জটিল হয়ে গেলো। কারণ আইপি অ্যাড্রেসটি সিঙ্গাপুরের।

বিশেষজ্ঞদের অনুমান, কেউ ভিপিএন ব্যবহার করে ফর্ম ফিল আপ করেছে। এখানে যে আইপি অ্যাড্রেস ব্যবহার করা হয়েছে তা সিঙ্গাপুরের আইপি অ্যাড্রেস। ইন্টারনেটে নিজের পরিচয় গোপন রাখতে ভিপিএন পরিষেবা ব্যবহার করে থাকেন অনেকে। এর ফলে তথ্য ফাঁস হলেও তার মালিককে শনাক্ত করা সম্ভব হয় না।

ইউএইচ/









Leave a reply