বেনাপোলে রাজস্ব ফাঁকির অভিযোগে ট্রাকসহ শাড়ির চালান আটক

|

বেনাপোল প্রতিনিধি:

বেনাপোল বন্দরে ২০ লাখ টাকা রাজস্ব ফাঁকির অভিযোগে ট্রাকসহ একটি শাড়ির চালান আটক করেছে কাস্টমস কর্মকর্তারা। আজ মঙ্গলবার সকালে বন্দরের ১৩ নম্বর শেড থেকে শেড ইনচার্জের সহযোগিতায় শাড়ির এই চালানটি পাচার করা হচ্ছিল।

বেনাপোল কাস্টমস সূত্র জানায়, যশোরের ভাবনা এন্টারপ্রাইজ নামে একজন আমদানিকারক প্রতিষ্ঠান ভারত থেকে ৬০২ প্যাকেজ রকমারি পণ্য আমদানি করেন। যার কাস্টমস বি/ই নাম্বার -৩২৯৩৭ তারিখ-১৩/০৮/২০। পণ্যচালানটি ছাড় করার দায়িত্বে ছিলেন, পুটখালি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মাস্টার হাদিউজ্জামানের মালিকানাধীন সিএন্ডএফ এজেন্ট রিমু এন্টারপ্রাইজ। পণ্যচালানটি কাস্টমস ও বন্দরের সকল আনুষ্ঠানিকতা শেষে বন্দর থেকে ডেলিভারি নেয়ার সময় কৌশলে একই শেডে লুকিয়ে রাখা অতিরিক্ত ১০ বেল উন্নত মানের বিয়ের শাড়ি ট্রাকে তুলে নিয়ে যাওয়ার সময় কাস্টমস কমিশনার আজিজুর রহমানের নির্দেশে পণ্যচালানটি আটক করা হয়। আটক ট্রাকের নম্বর ঢাকা মেট্রো ট-১৩-০৪৫৪।

আটক অতিরিক্ত ১০ বেল শাড়ির কোনো কাগজপত্র ট্রাকের সাথে ছিল না। দীর্ঘদিন ধরে সে প্রভাব খাটিয়ে বন্দর থেকে কাগজপত্র বাদেই নো এন্ট্রি মালামাল পাচার করে আসছিল। সরকারের রাজস্ব ফাঁকি দিয়ে কোটি কোটি টাকার অবৈধ অর্থের মালিক হয়েছেন মাস্টার হাদিউজ্জামান। ইতোপূর্বে বিভিন্ন সময়ে তার মালিকানাধীন সিএন্ডএফ এজেন্ট রিমু এন্টারপ্রাইজের বৈধ পণ্যের সাথে অবৈধ পণ্য আটক হওয়ার একাধিক রেকর্ড কাস্টমস এ আছে বলে কর্তৃপক্ষ জানান।

তবে, ২০ লাখ টাকার রাজস্ব ফাঁকির অভিযোগে তার সিএন্ডএফ এজেন্ট লাইসেন্স বাতিল করার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। গত বৃহস্পতিবার বিকেলে রিমু এন্টারপ্রাইজের ভারত থেকে আমদানি করা একটি মাছের চালানে ১১ লাখ টাকার রাজস্ব ফাঁকি ধরা পড়েছে।

বেনাপোল কাস্টমস হাউসের কমিশনার আজিজুর রহমান জানান, গোপন সূত্রে খবর পেয়ে রাজস্ব ফাঁকির অভিযোগে সিএন্ডএফ এজেন্ট রিমু এন্টারপ্রাইজের একটি শাড়ির চালান আটক করা হয়েছে। যার কোনো কাগজপত্র ছিল না। তার লাইসেন্স বাতিলের প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে।

ইউএইচ/





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply