হাসপাতালে ঠাঁই না পাওয়ায় পরিত্যক্ত ঘরে সন্তান প্রসব

|

হাসপাতালে ঠাঁই না পাওয়ায় পরিত্যক্ত ঘরে সন্তান প্রসব

গাইবান্ধা প্রতিনিধি:

গাইবান্ধায় মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্রে ঠাঁই না পাওয়ায় রাস্তার পাশে এক পরিত্যক্ত ঘরে সন্তান প্রসব করেছেন এক প্রসূতি। বুধবার রাতে মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্র থেকে বিতাড়িত হয়ে শহরের ডিবি রোডে সন্তান প্রসব করেন তিনি। পরে পুলিশের সহযোগীতায় অসুস্থ অবস্থায় মা ও শিশুকে সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

স্বজনদের অভিযোগ, প্রসব বেদনা উঠলে ফুলছড়ির বোনারপাড়া থেকে সিনএনজিযোগে মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্রে রওনা দেন তারা। সেখানে পৌঁছার পর মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্রের পরিদর্শিকা সেলিনা বেগম কোন পরীক্ষা ছাড়াই অন্তঃসত্ত্বা ওই নারীকে অন্যত্র যেতে বলেন। পরিবারের পক্ষ থেকে একাধিকবার অনুরোধ করা হলেও কর্ণপাত না করে উল্টো গালিগালাজ করে বের করে দেয়া হয় তাদের। পরে বিতাড়িত হয়ে শহরের ডিবি রোডের পরিত্যক্ত ঘরে মেয়ে সন্তান প্রসব করেন ঐ প্রসূতি মা। এরপরে এলাকাবাসী ও পুলিশের সহযোগীতায় অসুস্থ অবস্থায় মা ও শিশুকে গাইবান্ধা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

তবে সব অভিযোগ অস্বীকার করে মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্রের পরিদর্শিকা সেলিনা বেগম জানান, অতিরিক্ত রক্তক্ষরণ হওয়ার ভয়ে প্রসূতিকে ভর্তি করা হয়নি। তাকে সদর হাসপাতালে ভর্তির পরামর্শ দেয়া হয়।

এ বিষয়ে গাইবান্ধা সদর হাসপাতালের মেডিকেল অফিসার ডা. আমিনুল ইসলাম জানান, প্রসূতি মা ও শিশুকে গাইনি ডাক্তারের পরামর্শে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। বর্তমানে মা ও শিশু দুজনেই সুস্থ রয়েছেন।

এদিকে, প্রসূতি মায়েদের স্বাভাবিকভাবে সন্তান প্রসবের একমাত্র ভরসাস্থল মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্র হলেও চলতি বছরে এপ্রিলে ঘটেছে এমন আরও একটি ঘটনা। এমন ঘটনায় ক্ষোভ বিরাজ করছে সচেতন মহলে। সুষ্ঠ তদন্ত সাপেক্ষে জড়িতদের দৃষ্টান্ত শাস্তির দাবি জানিয়েছেন ভুক্তভোগী ও সচেতন মহলের।









Leave a reply