ইউরোপে পাড়ি দিতে গিয়ে মৃত্যু: ৪৭ ভাগই শারীরিক নির্যাতনের শিকার

|

২০১৮-১৯ সালে অবৈধ উপায়ে ইউরোপে পাড়ি দিতে গিয়ে শুধু লিবিয়া রুটেই প্রাণ গেছে ১৭শ’র বেশি মানুষের। যার ৪৭ ভাগই শারীরিক নির্যাতনের শিকার হয়ে মারা গেছে। এ তথ্য প্রকাশ করেছে জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক সংস্থা ইউএনএইচসিআর। যদিও এর মধ্য নেই সমুদ্রে মারা যাওয়ার হিসাব।

সংস্থাটি বলছে, বিভিন্ন অভিবাসন কেন্দ্রে আশ্রয় নেয়া ১৬ হাজারের বেশি শরণার্থীর সাক্ষাৎকার নিয়ে এই প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়েছে। তাদের বক্তব্য, ভূমধ্যসাগর পাড়ি দিয়ে ইউরোপে যাওয়ার প্রলোভনে পড়েই প্রাণ হারাচ্ছে বেশির ভাগ অভিবাসনপ্রত্যাশী। শিকার হচ্ছে অপহরণ এবং পাচারের। এসময় অর্থ আদায়ের নামে চলে নির্মম নির্যাতন। গেলো মে মাসে লিবিয়াতে অপহরণের শিকার ২৬ বাংলাদেশিকে গুলি করে হত্যা করে মানব পাচারকারী ও অপহরণ চক্রের সদস্যরা।

কেন্দ্রীয় ভূমধ্যসাগরের দায়িত্বে থাকা ইউএনএইচসিআরের বিশেষ দূত ভিনসেন্ট কোচটেল বলেন, লিবিয়াতে স্থলপথে যে সংখ্যক মানুষ মারা গেছে, প্রায় একই সংখ্যক মানুষের মৃত্যু হয়েছে সমুদ্রপথে। তবে আমাদের ধারণা প্রকৃত সংখ্যা আরও বেশি। শারীরিক নির্যাতন এবং যৌন হয়রানির মতো ঘটনার সাথে সরাসরি জড়িত দেশটির কিছু নিরাপত্তাবাহিনীর সদস্য, অভিবাসন কর্মকর্তা এবং সীমান্তরক্ষীরা।









Leave a reply