সিলিকা জেলের ব্যবহার

|

সিলিকা জেল খুব প্রয়োজনীয় ও পরিচিত একটি নাম। নতুন ব্যাগ কিংবা জুতা কিনলেই ভেতরে ছোট্ট বালিশের মতো দানা ভরা যে থলে থাকে ওগুলোই হল সিলিকা জেল। ভিটামিন ওষুধের কৌটার মাঝেও থাকে উপাদানটি। তবে এই সিলিকা জেল বেশ কিছু কাজে লাগে। আসুন জেনে নেই কী কী কাজে লাগে সিলিকা জেল ব্যবহার হয়:

* ড্রয়ারের ভেতরে একসঙ্গে অনেক ধরনের জিনিস রাখা হয়। এতে করে সহজেই ড্রয়ারের ভেতরে ভ্যাপসা গন্ধ তৈরি হয়। এই সমস্যা এড়াতে ড্রয়ারে কয়েকটি সিলিকা জেলের ব্যাগ রেখে দিতে পারেন।

* নিয়মিত যে জুতা পরেন সেটাতে স্বাভাবিকভাবেই ভেজাভাব ও বাজে গন্ধ হয়ে যায়। এই সমস্যা থেকে দূরে থাকতে চাইলে ছুটির দিন জুতার ভেতরে ৩ থেকে ৪টি ছোট সিলিকা জেলের ব্যাগ রেখে দিন।

* ক্যামেরা ও লেন্সে খুব সহজেই ফাঙ্গাস পড়ে যায়। ক্যামেরা ও লেন্সকে দীর্ঘদিন সুরক্ষিত রাখতে ক্যামেরা ও লেন্সের ব্যাগের ভেতরে কয়েকটা সিলিকা জেল রেখে দিন। এতে ফাঙ্গাসের ভয় থাকবে না।

* গহনার বাক্সে আলাদা করে বহু যত্নে গয়না রাখলেও কালচে হয়ে যায় তা। সেই সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে জুয়েলারি বক্সে সিলিকা জেলের ছোট প্যাকেট রেখে দিন। এতে করে সিলিকা জেল বাতাসের বাড়তি আর্দ্রতাকে শোষণ করে গহনা চকচকে রাখবে।

* মোবাইলফোন পানিতে পড়লে মোবাইলের ভেতরে পানি ঢোকে। এক্ষেত্রে সিলিকা জেল খুব প্রয়োজনীয় একটি উপাদান হিসেবে কাজ করে। একটি ব্যাগে বেশ কয়েকটি সিলিকা জেলের ব্যাগ নিয়ে এতে মোবাইল রেখে দিতে হবে অন্তত ৮ ঘণ্টার জন্য। দেখবেন মোবাইলের ভেতরের যন্ত্রাংশে পানি ঢুকে গিয়ে থাকলেও সিলিকা জেল তা শোষণ করে নিয়েছে।

* কয়েকটি সিলিকা জেলের প্যাকেট কাগজপত্র রাখার স্থানে রেখে দিন। পোকামাকড় ও ব্যাকটেরিয়ার হাত থেকে সিলিকা ব্যাগ কাগজপত্রকে রক্ষা করবে।

* পুরনো ছবি অনেক সময় ফাংগাশ পড়ে স্যাঁতসেঁতে হয়ে যায়। ছবিগুলোর মধ্যে সিলিকা ব্যাগ রেখে দিন। দেখবেন ছবিগুলো আর স্যাঁতসেঁতে হবে না।

* শীত শেষে শীতের কাপড় আলমারিতে তুলে রাখতে হয় পরের বছরের জন্য। যখন বের করা হয় তখন কাপড়ে এক ধরনের গন্ধ বের হয়। তাই শীতের কাপড় সংরক্ষণের সময় দুই থেকে তিনটি সিলিকা ব্যাগ রেখে দিন কাপড়ের ভাঁজে ভাঁজে। কাপড়ে কোনো গন্ধ থাকবে না।

* দীর্ঘদিন রেজর ব্যবহারে মরচে পড়তে পারে। তাই একটি কনটেইনারে কিছু সিলিকা জেলের ব্যাগ রেখে তার মধ্যে রেজরটি রাখুন। আর মরচে পড়বে না।

সূত্র: ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply